বিবাহ অনুষ্ঠানের খরচ বাঁচিয়ে দুঃস্থদের হাতে তুলে দিলেন শিক্ষার উপকরণ

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অনুযায়ী করোনার আবহে এক জায়গায় বেশি লোক একত্রিত হতে পারবে না। সেই নিয়ম মেনেই বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পটাশপুরের আড়গোয়ালের ছোট উদয়পুরের বাসিন্দা প্রসূন আচার্য্য এবং রুমা বটব্যাল (আচার্য্য)। আর বিয়ের খরচ বাঁচিয়ে শিক্ষার আলো প্রসারের ক্ষেত্রে এক মহান উদ্যোগ নিলেন তাঁরা।

পাহাড়পুর জ্ঞানেন্দ্র ঝাড়েশ্বর বিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের শিক্ষক প্রসূনবাবু, সোমবার বিবাহের পর বুধবার নিজের বাসভবনে বধুবরন ও প্রীতিভোজ আয়োজন করেন। এই অনুষ্ঠানে সবাইকে ডাকা সম্ভব হয়নি তাই সেই আক্ষেপ পূরণ করতে এক অভিনব উদ্যোগ গ্রহণ করলেন শিক্ষক ও তাঁর পরিবার।

এদিন এলাকার প্রায় শতাধিক দুঃস্থ ও মেধাবী ছাত্র ছাত্রীদের হাতে রসায়ন বিভাগের বই ও অন্যান্য শিক্ষা সামগ্রী তুলে দিলেন নব বিবাহিত শিক্ষক ও তাঁর স্ত্রী। এছাড়া একটি করে লেবু গাছের চারাও দেওয়া হয় সবাইকে। তাঁর বাবা প্রণবেশ আচার্য্য, মা সবিতা ও বোন পৌষালি, প্রসূনবাবুর এই মহান উদ্যোগে সামিল হয়ে খুবই আনন্দিত।

পাশাপাশি সদ্য বিবাহিতা রুমা বটব্যাল (আচার্য্য) বলেন, বিয়ের ঠিক পরই স্বামী আমাকে জানান, তিনি ছাত্রছাত্রীদের হাতে কিছু শিক্ষার সামগ্রী তুলে দিতে চান। তাঁর এই কাজে আমিও সম্মতি জানিয়েছি। তাঁর এই শুভ উদ্যগে সামিল হতে পেরে আমিও খুব খুশি।

এদিন প্রসূনবাবুর বিদ্যালয়ের কিছু ছাত্রছাত্রীও অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রিত ছিল। তাদের কথায়, বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে যে বই খাতা নিয়ে বাড়ি যাবো কোনো দিন ভাবিনি। আমরা খুবই আনন্দিত শিক্ষকের থেকে এই ধরনের উপহার পেয়ে।

Reply