সবার আগে দেশভক্তি, বাবার সৎ’কা’র স্থ’গিত রেখে স্বাধীনতা দিবসের প্যারেডে অংশ নিলেন মেয়ে

তেরুনেলভিলতে স্বাধীনতা দিবসের দিন এক বীরঙ্গনা কন্যা মহেশ্বরী তার নিজের বাবার মৃ-ত্যু-র খবর শুনা সত্তেও স্বাধীনতা দিবসের প্যারেড ছেড়ে যাননি। তিনি তার দেশমাতার কাজকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন তার বাবা সৎ’কা’রের কাজের থেকে।

স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে তার কর্তব্য যথাযথভাবে পালন করেছেন। এবং দেখিয়ে দিয়েছেন যে মেয়েরা চাইলে সব কিছুই করতে পারে। কালেক্টর শিল্পা প্রভাকর ও পুলিশ সুপার এন মনিভান্নারের সামনে প্যারেডের সমস্ত দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। সূত্র অনুযায়ী তিনি 14 ই আগস্ট এরদিনেই খবর পান তার বাবা গ’ত হয়েছেন। তার সত্বেও তিনি 15 ই আগস্ট এরদিন গার্ড অফ অর্নারে যোগদান করেন।

তিরুনেলভেলি থেকে 200 কিলোমিটার দূরে দিন্দিগুলে মহেশ্বরীর বাবা ৮৩বছর বয়সী নারায়নস্বামী মা’রা যান। তার বাবার মৃ-ত্যু হয়েছে বয়স জনিত কারণেই। প্যারেড শেষ হওয়ার পরে তিনি তার বাবাকে শেষ দেখা দেখবার জন্য দিন্দিগুলে জন্য রওনা হন এবং সেখানে গিয়ে তার বাবার সৎ’কা’রের কাজ সম্পন্ন করেন।

পুলিশ মহলে যথেষ্ট প্রশংসাও পেয়েছেন তার এই বীরত্বের জন্য। বাবার মৃ-ত্যুর খবর শোনা সত্বেও তিনি প্যারেডের মাঠ ছেড়ে যাননি, যথেষ্ট মনোযোগ সহকারে একটুও আবেগ প্রকাশ না করে তার নিজের কাজ সম্পন্ন করেছেন। অর্থাৎ তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন দেশমাতা থেকে বড় কাজ আর কিছুই হতে পারে না।

Reply