ভিক্ষা করে জমানো ৯০হাজার টাকা ক’রো’না মো’কাবিলায় দান করলেন এই বৃদ্ধ ভিখারি…

একটা প্রবাদ ছিল ,’ যে হাত ভিক্ষা নেয়, সে হাত কাওকে কিছু দিতে পারে না।’ তবে সেই প্রবাদকে মিথ্যে প্রমান করে মাদুরাইয়ের রাস্তায় জীবন যাপন করা এক ভিখারি ক’রো’না বি’রুদ্ধে ল’ড়া’ইয়ের জন্য ৯০ হাজার টাকা দান করে , এই মহৎ কাজের জন্য জেলা শাসকের হাতে পুরস্কৃত হয়েছেন।

ওই ব্যক্তির নাম পুলপান্ডিয়ান, তিনি তুতিকরণ জেলার বাসিন্দা। জানা গিয়েছে, ওনার দুই ছেলে ওনাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয় বলে তিনি ভিক্ষা চাওয়া শুরু করেছেন। শুধু ক’রো’না মো’কা’বিল প্রথম নয় তিনি তার ভিক্ষার টাকা টেবিল, চেয়ার কেনা আর জলের সুবিধা উপলব্ধ করানোর জন্য সরকারি স্কুলে দান করতেন।

পুলপান্ডিয়ান নামের ওই ভিখারি জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে প্রথমবার ১০ হাজার টাকা দান করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী তহবিলে, পরে তিনি আরও আটবার জেলা শাসকের দফতরে যান আর প্রতিবারই ১০ হাজার করে টাকা দান করেন। এখনো পর্যন্ত তিনি মোট 90 হাজার টাকা দান করেছেন।

ওই জেলা শাসক স্বাধীনতা দিবসের দিন পুরস্কার পাওয়া মানুষদের তালিকায় পুলপান্ডিয়ানের নাম দাখিল করেছিলেন। কিন্তু স্বাধীনতা দিবসের দিন ওনার অনেক খোঁজ করেও খুঁজে পাওয়া যায় নি, কারণ পুলপান্ডিয়ান কখনো এক জায়গায় থাকেন না ঘুরে বেড়ান চারিদিকে।

সোমবার পুলপান্ডিয়ান নবমবার জেলা শাসকের অফিসে টাকা জমা দিতে আসলে ওনাকে সোজাসুজি জেলা শাসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হয় এবং সম্মানিত করা হয়।

জানা গিয়েছে, মাদুরাই নগর নিগমের তরফ থেকে স্থাপিত একটি অস্থায়ী আশ্রয় স্থলে তাকে থাকতে দেওয়া হয়েছিল এমনকি সেখানে ওনার খাওয়া-দাওয়া আর অন্যান্য প্রয়োজনের সুবন্দোবস্ত করা হয়েছিল কিন্তু তিনি সেখানে থাকা বন্ধ করে দেন।

ভিক্ষুক পুলপান্ডিয়ানের ক’রোনা আ’ক্রা’ন্তদের জন্য ভিক্ষার প্রায় 90 শতাংশ দান করা নজির গড়েছে , এমনকি পুরো ভারত তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

Reply