পাকিস্তানকে মুসলিম দেশগুলির ‘নেতা’ বানানোর চেষ্টা চিনের

এবার পাকিস্তানকে মুসলিম বিশ্বের দেশগুলির মধ্যে ‘নেতা’ বানাতে চাইছে চিন। পৃথিবীর একমাত্র পরমাণু শক্তিধর মুসলিম দেশ হিসেবে পাকিস্তানই হোক ইসলামিক দেশগুলির প্রধান, এমনটাই চাইছে চিনের জিনপিং প্রশাসন। ভারতকে চাপে রাখতেই চিনের এই কৌশল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

ভারতকে প্যাঁচে ফেলতে পাকিস্তানকে ‘শক্তিধর’ বানানোর চেষ্টায় চিন। পৃথিবীর একমাত্র পরমাণু শক্তিধর মুসলিম দেশ হল পাকিস্তান। ইমরান খানের দেশের এই পরিচয়টিকেই ঢাল বানাতে চাইছেন চিনের প্রেসিডেন্ট জিনপিং।

সম্প্রতি একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে এমনই খবর প্রকাশিত হয়েছে। ভারতের পড়শি দেশ পাকিস্তান ইসলামিক দুনিয়ার প্রধানের ভূমিকা পালন করলে দিল্লিকে চাপে রাখা যাবে বলে মনে করছে বেজিং।

শুধু পাকিস্তানই নয়। বিশ্বের একাধিক মুসলিম দেশের সঙ্গে সম্পর্ক আরও মজবুত করতে তৎপরতা নিয়েছে চিন। ইরান, সৌদি আরব-সহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি মুসলিম দেশে বিনিয়োগ শুরু করেছে জিনপিং সরকার। ভারতের উপর চাপ বাড়ানোর কৌশল নেওয়ার পাশাপাশি, আমেরিকা বিরোধী দেশগুলিকেও কছে টানার চেষ্টায় জিনপিং প্রশাসন।

লাদাখের গালওয়ান সীমান্তে চিনা আগ্রাসনের পর থেকেই ভারতের সঙ্গে জিনপিংয়ের দেশের সম্পর্ক আরও অবনতি হয়। ভারতীয় ভূখণ্ডে চিনা অনুপ্রবেশ রুখতে গিয়ে সেদিন শহিদ হন দেশের ২০ জওয়ান। তারপর থেকেই চিন-বিরোধী সুর দেশজুড়ে।

গোটা দেশে চিনের দ্রব্য বয়কটের ডাক জোরালো হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারও চিনের সঙ্গে সবরকম বাণিজ্য সম্পর্ক চ্ছিন্ন করার পথ নিয়েছে। একের পর এক চিনা সংস্থার সঙ্গে বিভিন্ন ক্ষেত্রে চলা কাজ বাতিল করা হয়েছে। ভারতে নিষিদ্ধ করা হয়েছে একাধিক চিনা অ্যাপ।

গত কয়েকমাসে চিনের বিরুদ্ধে ভারতের লাগাতার ‘ডিজিটাল স্ট্রাইক’ ও বাণিজ্যিক দিক থেকে আঘাতের ধাক্কা টের পেতে শুরু করেছে বেজিং। ভারতের মতো দেশে এত বড় বাজার নষ্টের জেরে খানিকটা হলেও বেকায়দায় চিন সরকার।

সেই কারণেই এবার ভারতের অস্বস্তি বাড়াতে ‘বন্ধু’ পাকিস্তানকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে চিন। ভারতের বন্ধু দেশ বাংলাদেশকেও কাছে টানার মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে চিন।

Reply