প্রকাশ্যে এলেন মন্ত্রী শুভেন্দু, ‘দাদা’কে দেখেই চাঙ্গা কর্মীরা…

দিল্লি দরবারে নাকি শুভেন্দু অধিকারী। শুধু তাই নয়, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে নাকি একপ্রস্ত বৈঠকও হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়ে যায় সেই খবর। ভাইরাল হওয়া খবরে দাবি করা হয় যে, রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী দিল্লি দরবারে।

এই খবরে কার্যত তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা নিরাশ হয়ে পড়েছিলেন। সবার মনেই প্রশ্ন উঠতে থাকে যে তাহলে কি দাদা সত্যিই বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। কারণ গত কয়েকদিন ধরে এমন হাজারও খবর প্রকাশ্যে আসে। এমনকি গত কয়েকদিন ধরে সেভাবে দেখাও যায়নি। যা নিয়ে আরও জল্পনা জোরদার হয়।

অবশ্য সমস্ত জল্পনায় জল ঢেলে প্রকাশ্যে এলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। শনিবার রাতে হলদিয়ার মঞ্জুশ্রী মোড়ে গণেশ পুজোর উদ্বোধন করেন স্বয়ং রাজ্যের মন্ত্রী তথা হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান শুভেন্দু অধিকার। প্রকাশ্যে আসলেও অবশ্য সংবাদমাধ্যমের কাছে মুখ খুললেন না। এবং দলত্যাগ নিয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া জানালেন না।

তবে এটা নিশ্চিত দিল্লিতে নয়, নিজের জেলাতেই রয়েছেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। এদিন সন্ধ্যায় পুজো মন্ডপে আসেন। খুব অল্পই কথা বলেন পুজো উদ্যোক্তাদের সঙ্গে। কিছুক্ষণ থেকেই সেখান থেকে চলে যান শুভেন্দু। উল্লেখ্য, বেশ কিছু দিন ধরে রাজ্যের অন্যতম মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়। বিশেষ করে অধিকারী সাম্রাজ্যের পাড়ায় পাড়ায়, গলিতে গলিতে, মোড়ে মোড়ে, চায়ের ঠেকে আলোচিত হতে থাকে। সেই আলোচনায় উঠে আসে বিভিন্ন বিষয়।

তার উপর গত ২১ তারিখে সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয় একটি খবর। যেখানে বলা হয় যে রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী দিল্লীতে গিয়ে বিজেপির নেতাদের সঙ্গে নাকি বৈঠক করে বিজেপিতে যোগদান করছেন। সেই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর সাধারন মানুষের কৌতুহল আরও বেড়ে যায়।

সূত্রের মাধ্যমে পাওয়া খবর, সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর সম্পূর্ণ মিথ্যে। কারন তিনি তাঁর মায়ের অসুস্থতা নিয়ে চিন্তিত। দিল্লি যাওয়া তো দূরের কথা তিনি জেলাতেই কাটিয়েছেন। গত কয়েকদিন ধরে জেলাতেই আছেন। ইতিমধ্যে সংবাদ মাধ্যমের কাছে খবরের সত্যতা জানতে চেয়ে আইনী নোটিশ পাঠিয়েছেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

উল্লেখ্য, মা গায়ত্রী দেবী অসুস্থাতার কারনে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছেন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অন্যান্য মন্ত্রীরাও শিশির অধিকারী ও শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন। দ্রুত তাঁর সুস্থতা কামনা করেছেন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Reply