জাকির নায়েকের ভাষণ শুনে অনুপ্রাণিত হয়েছিল ধৃত আইসিস জ’ ঙ্গি…

তদন্তে একের পর তথ্য উঠে আসছে। দিল্লি পুলিশের সূত্র জানাচ্ছে ধৃত আইসিস জঙ্গি আবু ইউসুফ ওরফে মুস্তাকিম খান অনুপ্রাণিত হয়েছিল ইসলাম ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েকের বক্তৃতা শুনে। দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেলের হাতে ধৃত ইউসুফের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এমনই তথ্য উঠে এসেছে।

উল্লেখ্য উস্কানিমূলক মন্তব্যের অভিযোগে দেশছাড়া জাকির নায়েক। এছাড়া বিদেশ থেকে টাকা নেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। বর্তমানে জাকির নায়েক রয়েছেন মালয়েশিয়াতে। ২০১৮ সালের ফিউজিটিভ ইকোনমিক অফেণ্ডারস অ্যাক্ট অনুযায়ী, যেসব অর্থনৈতিক অপরাধীরা ভারতীয় নিয়মবিধিকে লঙ্ঘন করেছে তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে।

পলাতক ইকোনমিক অফেন্ডারসদের সম্পত্তি সরকারের তরফে বাজেয়াপ্ত করা হতে পারে পাশাপাশি নাগরিক হিসেবে যেকোন দাবি থেকেও বঞ্চিত হতে পারেন।

২০১৬ সালে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার হোলি আর্টিজান ক্যাফের ভিতর জ’ ঙ্গি হা’ ম’ লা হয়। বহু বিদেশিকে কুপিয়ে খু’ ন করে জ’ ঙ্গি’ রা। তারপর থেকেই উঠে আসে মুম্বই নিবাসী জাকির নায়েকের নাম। কারণ হামলাকারী বাংলাদেশি জঙ্গিরা পিস টিভি নামে একটি ইসলাম ধর্মীয় চ্যানেলে জাকিরের ভাষণ থেকে অনুপ্রাণিত হয়েছিল। এছাড়াও কাশ্মীরের জ’ ঙ্গি’ দের মধ্যে জাকির নায়েকের জনপ্রিয়তা ছড়ায় দ্রুত।

এই জাকির নায়েকের বক্তব্য শুনেই অনুপ্রাণিত হয়েছিল ইউসুফ বলে খবর। উল্লেখ্য এই ইউসুফের পরিকল্পনা সফল হলে বড়সড় নাশকতা ঘটে যেত দিল্লির বুকে। দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেলের ডিসিপি পি এস কুশওয়া জানিয়েছিলেন, দুটো প্রেশার কুকার ভর্তি আইইডি উদ্ধার করা হয়েছে। এই আবু ইউসুফ খানের আসল নাম প্রকাশ করেছে পুলিশ। ৩৬ বছরের মহম্মদ মুস্তাকিম খান ওরফে ইউসুফ উত্তরপ্রদেশের বলরামপুরের বাসিন্দা।

দিল্লি পুলিশের দাবি এই ব্যক্তি ১৫ই অগাষ্ট বড়সড় বিস্ফোরণ ঘটানোর পরিকল্পনা করেছিল, তবে ব্যর্থ হয়। এই ব্যক্তির একাধিক নাম ও পরিচয়পত্র রয়েছে। দিল্লির বিভিন্ন জায়গায় নাশকতার ছক ছিল ইউসুফের। তবে করোনার জেরে লকডাউনের কারণে সেই পরিকল্পনা সফল হতে পারেনি। তারওপর ছিল কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

ইউসুফের সঙ্গে আফগানিস্তানের আইসিসের সক্রিয় যোগাযোগ ছিল। যেহেতু সে উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা, এর ফলে সেই রাজ্যে কোনও আইসিস মডিউল গড়ে উঠেছে কীনা, সেই ব্যাপারেও খোঁজ নিচ্ছে পুলিশ।

তার স্ত্রী ও ৪ সন্তানের প্রত্যেকের পাসপোর্ট রয়েছে। ডিসিপি জানিয়েছেন প্রথমে তার সঙ্গে যোগ ছিল সিরিয়ায় নি’ হ’ ত ইউসুফ আলহিন্দির। পরে এক পাকিস্তানি আবু হুফাজার সঙ্গে যোগাযোগ রেখে নাশকতার ছক কষত ইউসুফ।

Reply