সোশ্যাল মিডিয়ায় এবার বড়সড় ধাক্কা খেলেন তৃণমূলের হেভিওয়েট মন্ত্রী! আঙুল তুললেন বিজেপির দিকে

বর্তমানে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের অনেককেই দেখা যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায় অত্যন্ত সক্রিয় থাকতে। সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে অনেক রাজনৈতিক নেতা নেত্রীরাই জনসংযোগ ঘটিয়ে চলেছেন প্রতিনিয়ত। আর সেক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়ায় যদি কোন চাপানউতোর হয়, তাহলে তা নিয়ে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন রাজনৈতিক কর্তাব্যক্তিরা। যেরকম এদিন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ হয়ে পড়লেন। তিনি জানিয়েছেন, হঠাৎ করেই তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি কোন কারণে ব্লক হয়ে গেছে।

যার ফলে তাঁর পেজটি কেউ দেখতে পাচ্ছেনা। আর এই নিয়েই রবীন্দ্রনাথ ঘোষের উদ্বেগ এদিন চরমে ওঠে। এদিন মন্ত্রী এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অভিযোগ তুলেছেন রাজ্যের বিরোধী শিবিরের দিকে। সূত্রের খবর, বেশ কিছুদিন আগেই তৃণমূলের রবীন্দ্রনাথ ঘোষের ফেসবুক পেজটি হঠাৎ করে ব্লক হয়ে যায়। যার ফলে প্রোফাইল, অ্যাকাউন্ট, পেজ কোনোটিই দেখা যাচ্ছেনা। মন্ত্রী অবশ্য এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সাথে সাথেই জানিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে।

তবে এই ঘটনার পেছনে তিনি বিরোধী শিবিরের হাত থাকতে পারে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। রবীন্দ্রনাথ ঘোষ এদিন দাবি করেন, তাঁর ফেসবুক পেজটি জনসাধারণের মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয়। অনেকেই এই পেজটি ফলো করেন। আর তাই হয়তো বিরোধীদের এত মাথাব্যথা এবং সে কারণেই তাঁর অ্যাকাউন্টটি ইচ্ছাকৃতভাবে কেউ বা কারা ব্লক করে দিয়েছে। রবীন্দ্রনাথ বাবু জানিয়েছেন, গত 21 আগস্ট দুপুরবেলা এই ঘটনাটি তাঁর চোখে পড়ে। যদিও এখনো পর্যন্ত তাঁর অ্যাকাউন্ট তিনি ফেরত পাননি বলেই জানা গেছে।

তিনি জানিয়েছেন, প্রায় দেড় লক্ষ ভিউয়ার্স নিত্যদিন দেখা যায় তাঁর ফেসবুক পেজে। সেক্ষেত্রে তিনি দাবি করেছেন, এতটা জনপ্রিয়তার ফলেই বি’রো’ধীরা তাঁকে হেনস্থা করতে চাইছে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট গায়েব করে। যদিও বি’রোধী শিবির থেকে বিজেপি স্পষ্টতই জানিয়ে দিয়েছে, এ ব্যাপারে তাঁদের কোনো হাত নেই। রবীন্দ্রনাথ ঘোষের এধরনের মন্তব্য পুরোপুরি ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

যদিও জাতীয় রাজনীতিতে কিন্তু বি’রো’ধীরা ইতিমধ্যেই অভিযোগ তুলেছেন, ফেসবুকের সঙ্গে বিজেপির ঘনিষ্ঠতা বেড়ে ওঠা নিয়ে। আর তাই তৃণমূলের জনপ্রিয় নেতার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্লক হওয়ার পেছনে বিরোধী বিজেপির ভূমিকা সর্বাগ্রে উঠে আসছে বলে মনে করা হচ্ছে।

Reply