গ্রামে বা পাহাড়ে অন্তত ৫ বছর চাকরি করতে হবে ডাক্তারদের, ঘোষণা সুপ্রিম কোর্টের

“ডাক্তারি পড়তে স্নাতকোত্তরে ভর্তির জন্য ইনসেনটিভ নম্বরের পরিবর্তে সংরক্ষণ ব্যবস্থা চালু করা হোক”, কিছুদিন আগে সরকারি ডাক্তাররা দেশের শীর্ষ আদালতে এ সংক্রান্ত একটি আবেদন পেশ করেন। সম্প্রতি ডাক্তারদের সেই আবেদনের ভিত্তিতে শুনানি পেশ করল সুপ্রিম কোর্ট। ডাক্তারদের আবেদন মেনে নিয়ে কোর্টের তরফ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হল, চিকিৎসা ক্ষেত্রে স্নাতকোত্তরে ভর্তির জন্য সংরক্ষণ ব্যবস্থা চালু করা যাবে।

পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের সদস্যরা এই দিন এই রায় দিয়েছেন যে, প্রত্যেক স্নাতকোত্তরে পাঠরত ডাক্তারদের এবার থেকে গ্রামে অথবা পাহাড়ে অন্ততপক্ষে পাঁচ বছরের জন্য প্র্যাকটিস করতে পাঠানো উচিত। তবে যারা ইতিমধ্যেই মেডিকেলে স্নাতকোত্তরে ভর্তি হয়ে গেছেন, তাদের জন্য এই নিয়ম প্রযোজ্য নয়।ভবিষ্যতে যে সকল ডাক্তারেরা স্নাতকোত্তরে ভর্তি হবেন তাদের ক্ষেত্রেই এই রায় লাগু হবে বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

উল্লেখ্য বেশ কয়েকটি রাজ্যের নিয়ম বিধি অনুযায়ী, প্রত্যন্ত এলাকায় এবং দু’র্গম স্থানে ডাক্তারি করলে ডাক্তারদের অতিরিক্ত ১০ শতাংশ নম্বর ইন্সেন্টিভ হিসেবে দেওয়া হবে। এমনকি নিটে ডাক্তারেরা যে নাম্বার পেয়েছেন তার ৩০ শতাংশ নম্বরও বেশি পেতে পারেন স্নাতকোত্তরে পাঠরত মেডিকেল পড়ুয়ারা। ডাক্তারদের সংরক্ষণের আবেদনে সম্মতি দিয়ে প্রত্যেকটি রাজ্যকে এ সংক্রান্ত নিয়ম বিধি তৈরির নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট।

তথ্যসূত্র : BanglarPran

Reply