চিন কখনও সীমা লঙ্ঘন করে না, ভারতের অভিযোগ উড়িয়ে দাবি বেজিংয়ের

লাদাখ সীমান্তে নতুন করে উ’ত্তে’জ’নায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ খারিজ করল চিন। তাদের দাবি, কঠোর ভাবে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) মেনে চলে তারা। তাদের বাহিনী কখনও সীমা লঙ্ঘন করে না।

গত ২৯-৩০ অগস্ট রাতে লাদাখে চিনা বাহিনী নতুন করে আ’গ্রা’সন দেখিয়েছে বলে সোমবার জানান ভারতীয় সে’নাবাহিনীর এক আ’ধি’কা’রি’ক। তা নিয়ে এ দিন বেজিংয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েন সে দেশের বিদেশমন্ত্রী ঝাও লিজিয়ান।

কিন্তু ভারতের অভিযোগ খারিজ করে সেখানে ঝাও বলেন, ‘‘চিনা সীমান্ত বাহিনী কঠোর ভাবে এলএসি মেনে চলে। তারা কখনও সীমা লঙ্ঘন করে না। ওই এলাকায় সম্প্রতি যে সমস্যা দেখা দিয়েছে, তা নিয়ে দুই দেশের বাহিনীর মধ্যে আলোচনা জারি রয়েছে।’’

লাদাখে নতুন করে উ’ত্তে’জ’না দেখা দেওয়ায় চুসুলে দুই দেশের ব্রিগেড কমান্ডার স্তরের বৈঠক শুরু হয়েছে বলে এ দিন ভারতের তরফে জানানো হয়। তা নিয়ে প্রশ্ন করলে ঝাও বলেন, ‘‘কূটনৈতিক ও সামরিক স্তরে দুই দেশের মধ্যে যোগাযোগ রয়েছে। নির্দিষ্ট কোনও বৈঠক বা আলোচনার কথা উঠলে বলব, সে রকম কিছু হলে সময় মতো তা প্রকাশ করব আমরা।’’

চিনা বাহিনীর অনুপ্রবেশ ঘিরে বছরের গোড়ার দিকে লাদাখের পরিস্থিতি তেতে ওঠে। জুনের মাঝামাঝি সময়ে গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় জওয়ানদের সঙ্গে র’ক্ত’ক্ষ’য়ী স’ঙ্ঘর্ষ বাধে তাদের। তাতে ২০ জন ভারতীয় জওয়ান প্রা’ণ হারান। হ’তা’হ’তে’র ঘটনা ঘটে চিনের তরফে। যদিও তাদের তরফে ঠিক কত জন প্রা’ণ হারিয়েছেন, তা আজও গোপন রেখেছে চিন।

সেই ঘটনার পর গত কয়েক মাসে দুই দেশের সামরিক ও কূটনৈতিক স্তরে একাধিক বৈঠক হয়েছে। তাতে দু’পক্ষই আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের কথা বললেও, এখনও পর্যন্ত তা নিয়ে কোনও সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়া যায়নি। তার মধ্যেই নতুন করে উত্তেজনার খবর সামনে এল।

তথ্যসূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

Reply