চিনের সঙ্গে সংঘাত, বিতর্কিত জায়গায় অ’ স্ত্র ও সেনা শক্তি বাড়াল ভারত

বেশ কয়েকটি সূত্র দাবি করেছে, প্যাংগং লেকে বিতর্কিত জায়গার দখল নিয়েছে ভারত। তবে এও জানা গিয়েছে তিনদিনে তিনবার ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালিয়েছে চিন। সোম ও মঙ্গলের বৈঠক ফলপ্রসু হয়নি তাই বুধবারও মিলিটারিস্তরে বৈঠকে বসেছে দুই দেশ। তবে চিনের ঔদ্ধত্য ও আগ্রাসী মনোভাব দেখে বাড়ানো হয়েছে সেনাবাহিনী, মোতায়েন করা হয়েছে অধিকসংখ্যক জওয়ান।

চিনের অনুপ্রবেশের চেষ্টা ব্যর্থ করতে সফল হয়েছে ভারত। খবর রটেছে, বিতর্কিত জায়গার দখল নিয়েছে ভারতীয় সেনা। শুধু তাই নয়, সেনার সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। অ’ স্ত্র’ সহ সেনা মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল উচ্চতায়। নিজেদের অস্তিস্ত্ব জানান দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে চিন। পূর্ব লাদাখে পিপলস লিবারেশন আর্মি নিজেদের অবস্থান বোঝাতে নজরদারি বাড়িয়েছে চিন সেনা।

লাদাখ নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনা কী হবে, তা নিয়েই মঙ্গলবার উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। উপস্থিত ছিলেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, সিডিএস বিপিন রাওয়াত, সেনাপ্রধান এমএম নারাভানে, ডিজি মিলিটারি অপারেশন লেফট্যানেন্ট জেনারেল পরমজিৎ সিং।

প্যাংগং লেকের দক্ষিণ প্রান্তের ওপর এখন উড়ছে ভারতীয় পতাকা। চিনা সেনাকে পুরনো অবস্থানে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে ভারত। তবে পূর্ব লাদাখে এখনও বেশ কিছু এলাকায় নতুন করে ঘাঁটি তৈরি করেছে চিনা সেনা। ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রে খবর প্যাংগং লেক এলাকায় নতুন করে সেনাছাউনি চোখে পড়েছে।

তৈরি হয়েছে চিনা সেনাঘাঁটি। এই এলাকা থেকেই চিনা সেনাকে সরে যাওয়ার কথা জানিয়েছিল ভারত। তবে তাতে যে তারা কর্ণপাত করেনি, তা বলাই বাহুল্য। তবে কয়েকটি সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে, শুধু প্যাংগং লেকের দক্ষিণ প্রান্তই নয়, স্পানগার গ্যাপ এলাকাও দখল নিয়েছে ভারতীয় সেনা। এই এলাকা সেনা মুভমেন্টের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

চিনের নতুন উসকানির চরম বিরোধিতা করে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে আমেরিকা। আমেরিকান ইন্ট্যালিজ্যান্সের অ্যাসেসমেন্ট অনুযায়ী, চিন ইচ্ছাকৃতভাবে বারবার ভারতকে উসকানিমূলক কাজে জড়িয়েছে। আমেরিকাও লক্ষ্য করে জানিয়েছে, চিন দেশের ভেতর এবং বাইরে টানা আগ্রাসী মনোভাব দেখাচ্ছে। লাইন-অফ-কন্ট্রোলের পরিস্থিতিতে লক্ষ্য রাখছে আমেরিকা।

তবে চিন বারবার বলছে ‘এক ইঞ্চি জায়গাও অধিকার করেনি’। লাদাখ সীমান্ত কব্জা করতে না পেরে প্যাংগং লেক নিয়ে ঝামেলা করতে শুরু করেছে চিন। চিনের সঙ্গে র’ ক্ত’ ক্ষ’ য়ী সংঘাতে জুনের ১৫ তারিখ ভারতের সেনাবাহিনীর ২০ জন জওয়ান শ’ হি’দ হয়েছিলেন।

বুধবারও মিলিটারিস্তরে আলোচনা হবে বলেই জানা গিয়েছে। প্যাংগং লেক নিয়ে ব্রিগেড কম্যান্ডারস্তরে বৈঠক চুশুলে হবে এমনটাই জানা গিয়েছে ভারতীয় সেনা সূত্রে। চিনের অনুপ্রবেশের চেষ্টা ব্যর্থ করতে সফল হয়েছে ভারত। নতুন করে দুই দেশের চাপ বাড়ায় মিলিটারিস্তরে বৈঠক শুরু হয়েছে। সোমবার এবং মঙ্গলবার এই দু’দিনের আলোচনা ফলপ্রসু হয়নি।

রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে বৈঠকের পরেই ভারতীয় সেনা চিন লাগোয়া সীমান্তে সেনা মোতায়েন বাড়িয়েছে। শুধু তাই নয় অ’ স্ত্র’ স’ হ’ বা’ হি’ নী’ র সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে। চিনের উসকানিমূলক কার্যকলাপ আটকাতেই রাতারাতি এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ভারতীয় সেনার তরফে, এমনটাই জানা গিয়েছে।

Reply