পাকিস্তানের অর্থনৈতিক ভবিষ্যৎ রয়েছে চিনের হাতেই, স্বীকার করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

চীনের ওপর নির্ভরতা বাড়াচ্ছে পাকিস্তান। এতদিন ধরে স্বীকার না করলেও তলায় তলায় যে তাদের অবস্থা কতটা জটিল থেকে জটিলতর হতে চলেছে সে কথা কারো অজানা নয়। সাম্প্রতিক একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাত্কার দিতে গিয়ে এমনটাই জানালেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার দাবি, চীনের হাতেই রয়েছে তাদের অর্থনৈতিক অবস্থার চাবিকাঠি।

পাকিস্তান এবং চীনের মধ্যে সম্পর্ক বহুকাল আগে থেকেই যে অনেকটা মজবুত এদিন সংবাদমাধ্যমকে জানালেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তাঁর পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী তিনি বলেন,”চীনের অর্থনীতি বিশ্বের বাকি দেশগুলোর তুলনায় দ্রুত গতিতে বাড়ছে।

তারা নিজের ধারণা দেশের নাগরিকদের যেভাবে খেয়াল রাখছে তা প্রতিমুহূর্তে অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নতি ঘটাচ্ছে। পাকিস্তান এই বিষয়টি থেকে শিক্ষা নিচ্ছে। আমাদের দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা এক মুহুর্তে ঠিক করে দেওয়া সম্ভব না তবুও গত দু’বছর ধরে আমরা সঠিক দিশা এগিয়ে চলেছি”।

তবে শুধুই পাকিস্তান নয় সারা বিশ্বের অনেক দেশ রয়েছে যারা পরিস্থিতির কারণে অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে দিয়ে চলেছে। এই নিয়ে ইমরান খান বলেন,”আমি মনে করি পাকিস্তান যে সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে বিশ্বের যেকোনও অর্থনীতিই তার মধ্যে দিয়ে গিয়েছে। ভিতর ও বাইরে চারিদিক থেকে সমস্যা।

পাওয়ার সেক্টর তো ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে। তবে কোনও দেশই জা”দু করে নিজেদের অর্থনৈতিক অবস্থা শোধরাতে পারেনি। রাতারাতি তা হয়ও না। এর জন্য সময় লাগে। সঠিক পদক্ষেপের মাধ্যমেই তা সম্ভব হয়।

গত ২ বছর ধরে পাকিস্তান সেটাই করছে। আর এই কাজে সবথেকে বেশি সাহায্য করছে চিন। তাদের সঙ্গে আমাদের অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরও দৃঢ় হওয়ার পর থেকেই পাকিস্তানের উন্নতি হচ্ছে। আগের থেকে দু’দেশর সম্পর্কও জোরদার হয়েছে”।

Reply