এবার অরুণাচল প্রদেশকে নিজেদের বলে দাবি করলেন চীন

পাঁচ জন ভারতীয় যুবক অরুণাচল প্রদেশের সীমান্ত থেকে অ*পহৃ’ত হয়। কিন্তু চিন সেকথা স্বীকার করতে নারাজ। তাদের দাবি, অরুণাচলপ্রদেশের অস্তিত্বকে কখনও স্বী’কৃতিই দেয়নি তারা।

বরং ওই অঞ্চলকে নিজেদের তিব্বত অঞ্চলের অংশ বলেই দাবি চিনের। চিনা সে’নাকে এই ঘটনা সম্পর্কে জানিয়ে দিয়েছিল ভারতীয় সে’না। অরুণাচল প্রদেশের ওই পাঁচজন যুবককে অ’পহ’রণের অভিযোগে উঠেছিল চিনের বি’রুদ্ধে।

পাঁচজন অরুণাচল প্রদেশের আপার সুবানসিরি জেলার নাচোতে জঙ্গল যাওয়া পাঁচ যুবকের অ’পহ’রণ নিয়ে সোমবার বেজিংয়ে প্রশ্নের মুখোমুখি হন চি’না বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান। তিনি বলেন, “ওই এলাকায় পাঁচ ভারতীয়র নিখোঁজ হয়ে যাওয়া নিয়ে চি’না বাহি’নীর কাছে কী বার্তা এসেছে, সে ব্যাপারে আমাদের কাছে কোনও ত’থ্য নেই”।

অরুনাচল প্রদেশ নিয়ে নিজেদের বক্তব্য স্পষ্ট করেই বলে দেন তিনি। তিনি জানান, “তথাকথিত অরুণাচল প্রদেশকে কখনওই স্বীকৃতি দেয়নি চিন। ওই এলাকাটি চিনের অন্তর্গত দক্ষিণ তিব্বত।”

গত মে মাস থেকে ভারত-চীন সম্পর্কের অব’নতি ঘটতে শুরু করেছে। কূট’নৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করেন যে, সেখান থেকে নজর ঘোরাতে চিন অরুণাচল প্রদেশকে নিশানা করতে পারে চিন। এরপরেই অরুণাচল প্রদেশ থেকে ওই পাঁচ জন যুবকের অ’পহ’রণ হওয়ার খবর আসে।

কোন দিকে সেই অঞ্চলের কংগ্রেস বিধায়ক নিনং এরিং জানিয়েছেন, টাগিন জনজাতির সাত জন তরুণ ওই এলাকার জঙ্গলে গিয়েছিলেন। ওই অঞ্চলের সাতটি এলাকা থেকে পিএলএ বাহিনী পাঁচ তরুণকে অ’পহ’রণ করে সীমান্ত পার করে নিয়ে চলে গিয়েছে। সেখান থেকে দুই যুবক কোনোক্রমে পালিয়ে আসতে সক্ষম হয়। পালিয়ে গিয়ে খবর দেয় এলাকাবাসী দের।

পু’লিশ সূত্রে খবর, টোচ সিংকাম, প্রসাদ রিংলিং, ডোংটু এবিয়া, টানু বাকের ও গারু দিরি- এই 5 জন তরুণ আ’টক হয়েছে চিনের সে’নাবাহি’নীর হাতে। চিনের সাথে আলোচনা করে পরিবারের ছেলেদের যাতে শীঘ্রই ফিরিয়ে আনা হয় তাই চাইছে পরিবারের লোকজন। সে সম্পর্কে চিনকে জানানো হলেও তারা কোনো সহযোগিতা করেনি। উল্টে আবারো সং*ঘা’তে জড়াতে চাইছে চিন।

Reply