বিজেপি ক্ষমতায় এলে অনুব্রতকে চায়না ট্রলিতে বেঁধে পিছনে রোলার চালিয়ে দেব, হুঁশিয়ারি বিজেপি নেতার

বিজেপির ডাকে সাড়া দিয়ে রাজ্যজুড়ে পালিত হল “পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও, গণতন্ত্র বাঁচাও” কর্মসূচি। পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও গণতন্ত্র বাঁচাওয়ের ডাক দিয়ে বীরভূমের রামপুরহাট-সহ বিভিন্ন সভামঞ্চ থেকে সরব হলেন বিজেপি নেতারা। বিজেপির জেলা কমিটির সদস্য মানস বন্দ্যোপাধ্যায় সভা থেকেই সরব হয়ে ওঠেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের বি’রুদ্ধে।

এদিন রামপুরহাটের সভা থেকে বলে ,”২০২১ সাল আসতে আর বেশি সময় নেই। ২০২১ সালে ভারতীয় জনতা পার্টি যেদিন ক্ষমতায় আসবে, সাধারণ মানুষ যেদিন দুই হাত তুলে ভারতীয় জনতা পার্টিকে আশীর্বাদ করবে, আজকে যিনি ওই মোটা মত অনুব্রত বাবু, যিনি বিজেপি কর্মীদের ভয় দেখাচ্ছেন, আপনাকে বলে যাচ্ছি আপনি সেদিন ভয় কাকে বলে দেখতে পাবেন।

এরপরেই তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ অনুব্রত মণ্ডলকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন,”সেদিন আমাদের ভারতীয় জনতা পার্টির বিজয় মিছিল বেরোবে। আমাদের ভারতীয় জনতা পার্টি প্রত্যেক শহরে শহরে, প্রত্যেক গ্রামে গ্রামে গেরুয়া আবীর ছড়িয়ে দেবে।

সেদিন আপনাকে আমরা একটা চায়না ট্রলিতে বাঁধবো। আর পিছনে একটা রোলার ভাড়া করবো। চায়না ট্রলিটা মাঝে মাঝে দাঁড়িয়ে যাবে, আর রোলারটা এগিয়ে যাবে। আপনি সেদিন বুঝবেন ভয় কাকে বলে।হাতে মাত্র আর ৮ মাস।”

বিজেপি নেতাদের বক্তব্যে থেমে থাকেনি তৃণমূল। বীরভূম জেলা তৃণমূল সহ সভাপতি অভিজিৎ সিংহ এই পরিপ্রেক্ষিতে বলেন,”বাংলার সংস্কৃতিতে এই সকল ভাষা মানায় না। এই সকল ভাষা উত্তর প্রদেশ থেকে নিয়ে আসা হচ্ছে।

আর এই সকল ভাষা প্রয়োগ করে যারা বাংলায় অশান্তির বাতাবরণ সৃষ্টি করার চেষ্টা করছেন তারা জবাব পাবেন ২০২১ সালে সাধারণ মানুষের ব্যালটে।” এছাড়া প্রতি জেলাতেই বিজেপির এই গণতন্ত্র বাঁচাও দিবস পালিত হয়। রাজ্যস্তরের বিজেপি নেতারা এবং বিজেপি সাংসদরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

Reply