ভেদ করতে পারবে না A’K-47-এর গু’লিও, সেনার হাতে যাচ্ছে ‘ভাবা কবচ’ জ্যাকেট!

নিজের জীবনের বাজি রেখে সবসময়, দেশের স্বার্থে শত্রুপক্ষের মোকাবিলা করতে হয় তাঁদের। যেকোনো মুহূর্তে ঘটে যেতে পারে অঘটন। মৃ’ত্যু সবসময় শিয়রে ঘাপটি মেরে থাকে। তাঁরা আর কেউ নন, আমাদের দেশের বীর জওয়ানরা।

এবার তাঁদের কথা ভেবেই, তাঁদের নিরাপত্তায় আরও জোর দিতে চাইছে কেন্দ্র। নিজের দেশকে সুরক্ষিত রাখতে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়ে থাকে ভারতের সেনা। এবার এই সেনা জওয়ানদের সুরক্ষার জন্য নতুন বু’লেট প্রুফ জ্যাকেটের ব্যবস্থা করেছে কেন্দ্র সরকার।

জানা যাচ্ছে যে, এই অভিনব জ্যাকেটগুলি তৈরি করেছে ভাবা অ্যাটোমিক রিসার্চ সেন্টার। এই নতুন জ্যাকেটের নাম ‘ভাবা কবচ’। হায়দরাবাদের কাঞ্চনবাগে, মিশ্র ধাতু নিগম লিমিটেডে (মিধানিতে) তৈরি করা হচ্ছে এই নতুন জ্যাকেট। জানা গিয়েছে A’K-47 রা’ই’ফে’লে’র গু’লিও এই জ্যাকেট ভেদ করে ঢুকতে পারবে না।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এই বু’লেট প্রুফ জ্যাকেট ছাড়াও সেনা বাহিনীর নিরাপত্তার জন্য তৈরি করা হচ্ছে বু’লেট প্রুফ যানও। আর তৈরি করা হয়েছে বিশেষ ধরনের তাঁবু।

উল্লেখ্য, ডিসেম্বর মাসে লাদাখে তাপমাত্রা মাইনাস ডিগ্রিতে নেমে যায়। সেখানে বিশেষ ধরনের তাঁবু পাঠানো হয়েছে, এই তাঁবুর মধ্যে একসঙ্গে ৮ থেকে ১০ জন সেনা থাকতে পারবেন বলে জানা যাচ্ছে। অন্যদিকে সেনার জন্য যে বিশেষ বুলেট প্রুফ যান তৈরি করা হচ্ছে, সেই গাড়ির চাকায় গু’লি লাগলেও, সেটি অন্তত ১০০ কিলোমিটার রাস্তা অনায়াসে অতিক্রম করে যাবে বলে জানা যাচ্ছে।

এছাড়াও সেনাদের দেওয়া হবে শীতে ব্যবহৃত সরঞ্জাম এবং তাপ নিয়ন্ত্রক নানা বস্তু। থাকছে অত্যাধুনিক সরঞ্জাম। যেমন ফাইবার প্লাস্টিকের ইগলু, তাঁবু। এদিকে বিশেষ তুষার বুটের জন্য সেনার তরফে আগেই আবেদন করা হয়েছিল। প্রবল শীতে ভারতীয় সেনার ল’ড়াই করতে যাতে সমস্যা না হয়, সেই কারণেই তৈরি করা হয়েছে ও হচ্ছে এইসব অত্যাধুনিক সরঞ্জাম। আর এইসব জিনিসগুলির মধ্যেই নতুন সংযোজন হল ‘ভাবা কবচ’ জ্যাকেট।

ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় আধা সামরিক বাহিনীকে কয়েকশো নতুন জ্যাকেট সরবরাহ করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। মিধানি-র চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর সঞ্জয় কুমার ঝা জানিয়েছেন, বেশি সংখ্যায় জ্যাকেট উৎপাদনের প্রযুক্তি তাঁদের হাতে রয়েছে।

Reply