ভারতের ৩৮ হাজার বর্গকিমি জমি দখল করেছে চীন, স্বীকার করলেন রাজনাথ সিং

ইতিপূর্বে ভারতের জমি দখলকে কেন্দ্র করে ভারত চীনের সম্পর্কের অবনতির কথা কারো অজানা নয়। এই নিয়ে বিরোধীরা বারেবারে কেন্দ্রীয় সরকারের বি’রুদ্ধে সরব হয়েছেন। চীন কি আদেও ভারতের জমি দখল করতে পেরেছে তার সঠিক পরিসংখ্যান চেয়েছিলেন বিরোধীরা।

এবার ভারতের জমি চীনের বেআইনি ভাবে দখল করা নিয়ে এতদিন পরে মিলল সেই স্বীকারোক্তি। ভারতের জমি বেআইনি ভাবে দখল করে রেখেছে চীন, স্বীকার করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

বৃহস্পতিবার লাদাখ সীমান্তের বিষয়ে রাজ্য সভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন,”চীন এখনও বেআইনিভাবে কেন্দ্রশাসিত লাদাখের প্রায় ৩৮ হাজার বর্গ কিলোমিটার জমি দখল করে রেখেছে। সেই সঙ্গে পাকিস্তান তথাকথিত শিনো-পাকিস্তান এলাকা থেকে আরও ৫ হাজার ১৮০ বর্গ কিলোমিটার চিনের হাতে তুলে দিয়েছে।

এসব ছাড়াও চিন ভারতের দখলে থাকা আরও ৯০ হাজার বর্গ কিলোমিটার জমিকে নিজেদের জমি বলে দাবি করে।” তার কথা থেকে এটা স্পষ্ট যে, কংগ্রেস আমলের চীন ভারতের যতটুকু জমি অধিকার করতে পেরেছিল বর্তমানে তার পরিমাণও ঠিক একই রয়েছে।

তবে এর পরে চীন কোন জমি দখল করেছে কিনা সে বিষয়ে কোনো তথ্য তিনি দেননি। তিনি বলেন,”সীমান্ত পরিস্থিতি এখন এমন পর্যায়ে আছে, যার বিস্তারিত তথ্য সংসদে বলা সম্ভব নয়। আশা করি সাংসদরা সরকারের অবস্থানের সঙ্গে সহমত হবেন।”

ভারত-চীন সীমান্তে চরম উত্তেজনা সম্পর্কে বক্তৃতা দিতে গিয়ে এদিন চীনকে দোষারোপ করে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বলেন,”এখনকার পরিস্থিতি অনেক আলাদা। আগের থেকে অনেক বড় এলাকা নিয়ে বিবাদ। এর সঙ্গে অনেক বেশি সে’নাবা’হিনীও জড়িয়ে। আমার এখনও সব সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধানের পক্ষে।

কিন্তু চীন ১৯৯৩ এবং ১৯৯৬ সালে হওয়া দ্বিপাক্ষিক চুক্তিকে সম্মান করছে না। যতদিন শান্তিপূর্ণভাবে দুই দেশের সীমানা নির্ধারণ না হচ্ছে, ততদিন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখাকে আমাদের সম্মান করতেই হবে।” তিনি বলেন,দেশের সীমানা রক্ষা করতে ভারতীয় সে’না খুবই তৎপর। সীমান্তের পরিকাঠামো আরও কঠোর করতে প্রতিরক্ষা খাতে সরকারি তরফ থেকে বিনিয়োগ বাড়ানো হবে।

Reply