সবকিছুর ঊর্ধ্বে মানবধর্ম! শেষ যাত্রায় হিন্দুকে কাঁধ দিলেন, গ্রামের একদল মুসলিম যুবক

সেই কবেই কবি বলেছিলেন,
“মোরা একই বৃন্তে
দুইটি কুসুম হিন্দু ,মুসলমান
হিন্দু তাহার নয়ন মনি
মুসলিম তার প্রাণ”।

কবির কথা আজও মিথ্যে হয়ে যায়নি। নানা বিবিদের মধ্যে মিলন এখনো রয়েছে। ভেদাভেদ মানুষের মধ্যে নেই ভেদাভেদ রয়েছে রাজনৈতিক নেতাদের প্ররোচনায়। যে যে ধর্মেরই হোক না কেন… সবথেকে বড় ধর্ম যে মানব ধর্ম তা এখনো মানুষ ভুলে যায়নি। এবার তারই প্রমাণ মিলল উত্তর প্রদেশের ফিরোজাবাদে । গত বৃহস্পতিবার দেখা গেছে এমনই নজির বিহীন ঘটনা।

ক’রো’নাই মিলিয়ে দিল হিন্দু মুসলমানকে। ফিরোজাবাদ এর স্থানীয় এক চিকিৎসক ছিলেন বিনোদ গুপ্ত ।তার শেষযাত্রায় কাঁধ দিলেন সেখানকারই একদল মুসলিম। যাঁরা যাত্রার সময় নির্দ্বিধায় উচ্চারণ করেন, “রাম নাম সত্য হ্যায়”!

ঘটনাটি ঘটেছে নলবন্দ চৌরাস্তার ঘনবসতি। ওই এলাকার দেবদূত ছিলেন বিনোদ গুপ্ত। ওখানেই ছিল তার একটি দাতব্য চিকিৎসালয় যেখানে তিনি বিনামূল্যে বহু রোগের চিকিতসা করেছেন। গরিব মানুষদের শাহাদাতে তিনি এই দাতব্য চিকিৎসালয় করেছিলেন।

সেই মানুষের শেষ সময়ে লোক উপচে পড়বে সেটাই স্বাভাবিক। তাই প্রত্যাশিতভাবেই সেদিন অগুনতি লোকের সমাহার হয়।ফিরোজবাদ সদর প্রশাসনের পক্ষ থেকে মণীশ আজেজাও যোগ দেন ডাঃ বিনোদ গুপ্তের শেষযাত্রায়।

চিকিৎসকের দেহ শ্ম’শা’নে নিয়ে গিয়ে সমস্ত নীতি মেনেই শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন। এই ঘটনা বিশ্বের কাছে একটি উদাহরণ সৃষ্টি করবে। সবকিছুর ঊর্ধ্বে গিয়ে যে মানবধর্ম তা আরো একবার স্মরণ করিয়ে দিল ফিরোজাবাদের এই ঘটনা। সাম্প্রদায়িক দা’ঙ্গা নয় চাই সম্প্রীতি এই ঘটনায় তা আরও একবার আমাদের মনে করিয়ে দেয়।

Reply