গালওয়ান সংঘাতে চিন সেনার মৃ’ ত্যু’ র কথা কার্যত স্বীকার করল বেজিং

গালওয়ানে ভারত-চিন সংঘাতে চিন কখনই তাদের সেনাবাহিনীর মৃ’ ত্যু’ র কথা স্বীকার করেনি। অবশেষে ফাঁ’ স হল সেই তথ্য। চিন সরকারের মুখপত্র গ্লোবাল টাইমসের সম্পাদক নিজেই সেকথা স্বীকার করে নিলেন। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বক্তব্য রাখার পরই পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে সেকথা স্বীকার করে ফেলেছেন তিনি।

সম্প্রতি রাজ্যসভায় বিবৃতি দিতে গিয়ে রাজনাথ সিং বলেন, গালওয়ানে সংঘাতে বহু চিন সেনার মৃ’ ত্যু হয়েছে। এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতেই ট্যুইট করেছেন গ্লোবাল টাইমসের এডিটর হু জিজিন।

তিনি বলেছেন, ভারতের যখন ২০ জন জওয়ানের মৃ’ ত্যু হয়েছে তখন চিনে সেই সংখ্যাটা অনেকটাই কম। আর একথা বলতে গিয়ে কার্যত চিন সেনার মৃ’ ত্যু’ র কথা বা চিনের ক্ষ’ য়ক্ষ’ তির কথা স্বীকার করে নিয়েছেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের একটি রিপোর্টের ছবিও পোস্ট করেছেন তিনি। সেটিকে ফেক নিউজ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় বিবৃতি দিতে গিয়ে রাজনাথ জানিয়েছেন লাদাখে ভারতীয় ভুখন্ডের ৩৮ হাজার বর্গ কিমি জুড়ে চিন সেনার অবস্থান। রাজ্যসভায় তিনি বলেন যে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল লাদাখে অন্তত ৩৮,০০০ বর্গ কিমি এলাকা বেআইনি ভাবে দখল করে রেখেছে চিন। এর পাশাপাশি তথাকথিত ১৯৬৩-র Sino-Pakistan Boundary Agreement অনুযায়ী পাক অধিকৃত কাশ্মীরের ৫১৮০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা পাকিস্তান চিনকে দিয়েছে ফের মনে করিয়ে দিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় লাদাখে চিন-ভারত টেনশন প্রসঙ্গে বিবৃতি দিতে গিয়ে রাজনাথ সিং বলেন, বিশ্বের কোনও শক্তি লাদাখে ভারতীয় সেনার টহলদারি আটকাতে পারবে না। ভারতীয় সেনার টহলদারি আটকানোর জন্য চিনা বাহিনীর চেষ্টাই লাদাখে সংঘাতের কারণ। পূর্ব লাদাখে ভারতীয় সেনাবাহিনীর টহলদারির ধরণও বিন্দুমাত্র পরিবর্তিত হবে না বলে এদিন বিরোধীদের প্রশ্নের উত্তরে জানিয়ে দেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। পাশাপাশি, গালওয়ান সংঘাতে চিনের বিপুল ক্ষ’ তি হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

Reply