অনুব্রত যেন একাই একশো, দলীয় কর্মীদের ক্ষোভসামাল দিচ্ছেন অনুব্রত

দলীয় কর্মী সম্মেলনে গিয়ে দলের কর্মীদের ক্ষোভের মুখে পড়লেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। একজন মহিলা তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী নিজের দলের বি’রু’দ্ধে সরব হলেন। দলীয় নেতৃত্বের বি’রু’দ্ধে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তার হাত থেকে মাইক্রোফোন কেড়ে নেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। বীরভূমের সিউড়ি ১ নম্বর ব্লকে বৃহস্পতিবার এই ঘটনা ঘটে।

নগরী গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানের বি’রু’দ্ধে এদিন দলেরই এক মহিলা কর্মী অভিযোগ করেন,পঞ্চায়েতে তাকে কোনরকম গুরুত্ব দেওয়া হয় না। আদিবাসী সমাজের প্রতিনিধি হওয়া সত্ত্বেও তাকে কোন রকমের গুরুত্ব দেওয়া হয় না বলে ক্ষোভ উগরে দেন তিনি।

ঠিক এর পরেই সভার যারা আয়োজন করেছিলেন তাঁরা ওই মহিলা নেত্রীর হাত’ থেকে মাইক্রোফোন কেড়ে নেন। তৃণমূল কংগ্রেসের অন্তর কলহের অন্যতম দৃষ্টান্ত হলো এই ঘটনা।

আর মাত্র কয়েকটা মাস পেরোলেই একুশের বিধানসভা ভোট। একুশের বিধানসভা ভোট কে সামনে রেখে বিরোধীরাও সরব হয়েছে শাসকদলের বি’রু’দ্ধে। এর মধ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বে একের পর এক নজির বিরোধীদল বিজেপিকে কঠোর হতে সহায়তা করছে।

অন্যদিকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একুশের বিধানসভা ভোট নিয়ে দাপুটে নেতা অনুব্রত মণ্ডল এর ওপর যথেষ্ট ভরসা করেন। দলীয় কর্মীদের মনের মধ্যে জমে থাকা খুব একের পর এক পদক্ষেপের মাধ্যমে সামাল দিয়ে চলেছেন অনুব্রত।

কিছুদিন আগেই পূর্ব বর্ধমান জেলার আউশগ্রামে দলীয় বুথ ভিত্তিক কর্মী সম্মেলনে যোগদানকারী একাধিক বুথ কর্মীরা তার কাছে বিভিন্ন অভিযোগ পেশ করেন। সরকারি আবাস যোজনার অনুদান প্রাপ্তিতে দেরি, গ্রামবাসীদের জব কার্ড বাতিল হয়ে যাওয়ার ঘটনা প্রভৃতি বিভিন্ন বিষয় নিয়ে একরাশ প্রশ্ন জমা পড়ে তার কাছে।

এছাড়াও রাস্তার বেহাল অবস্থা কে সামনে রেখে সভাপতির ক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছিল অনুব্রত কে। তৃণমূল কংগ্রেসের অন্তপুরের বাক-বিতণ্ডার প্রভাব ব্যালট বাক্সে পড়বে কিনা সেই নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন সকলেই।

Reply