বাংলা নয়, জ’ঙ্গিদের আঁতুড়ঘর উত্তরপ্রদেশ,বললেন ফিরহাদ হাকিম

পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ থেকে ছয়জন জ’ঙ্গি’কে গ্রেপ্তারের পর থেকে রাজ্য জুড়ে নতুন বিতর্কের উদ্ভব হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের সব মিলিয়ে ৬ জন আলকায়দা জ’ঙ্গি কে গ্রেপ্তার করেছে এনআইএ। এই নিয়ে অনেকেই অবশ্য রাজ্য সরকারকেই দায়ী করেছেন।

অন্যদিকে কেরলেও তিনজন জ’ঙ্গি’কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তারা মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা। এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে তাবড় তাবড় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করেছেন। এবার বিরোধীদের বি’রুদ্ধে সরব হলেন কলকাতা পৌরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

এদিনও ফিরহাদ হাকিম বলেন,যাঁরা বলছেন পশ্চিমবঙ্গ জঙ্গিদের আঁতুড়ঘর তাঁদের উচিত যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যকে একথা বলা। বাংলায় অর্থনৈতিক পরিস্থিতির অচলাবস্থার মধ্যে এমন ভাবে জ’ঙ্গি’দের গ্রেপ্তারের পর রাজ্যপাল মনে করেন, রাজ্যের গণতন্ত্র বিপন্ন হতে চলেছে। পশ্চিমবঙ্গ কে বো-‘মা তৈরীর কারখানা বলেও কটাক্ষ করেছেন তিনি।

এদিন পুরসভার চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম রাজ্যপালের মন্তব্যের ভিত্তিতে বলেন,”রাজ্যপাল এই সরকারের প্রধান পদে বসে রয়েছেন। তাঁর গর্বিত হওয়া উচিত। এই রাজ্য যদি সন্ত্রাসবাদী-জ’ঙ্গি’দে’র রাজ্য হয়, তাহলে রাজ্যের প্রধান হিসেবে তাঁর প্রথম ইস্তফা দেওয়া উচিত”। ফিরহাদ হাকিম বলেন- এই রাজ্য শান্তির রাজ্য, বাংলার মানুষকে অপমান করার অধিকার রাজ্যপালের নেই।

ফিরহাদ আরও বলেন,”রাজ্যে সব ঠিকঠাক চলছে। মানুষ মা-‘রা যাচ্ছে কিন্তু সেসব স্বাভাবিক প্র,’য়া’ণ। জ”ঙ্গি হানায় এই রাজ্যে মানুষ মারা যায় না। রাজ্যে আইনশৃঙ্খলার অবস্থা যথেষ্ট ভালো. কেউ অপরাধ করলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

“সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ফিরহাদ বলেন, রাজ্যে ৮ জন পুলিশকর্মীকে গু-‘লি করে নি’-হ’ত করা হয় সেটা স-ন্ত্রা’সবাদীর আঁতুরঘর হয় নাকি যেখানে সুষ্ঠুভাবে সবকিছু হয় সেটা হয়? পশ্চিমবঙ্গে আইন শৃঙ্খলা আছে এবং সব নিয়ম মেনে অপরাধীকে ধরে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। অন্যদিকে উত্তরপ্রদেশে অপরাধীকে ধরে আনতে আনতে এন’কা’উ’ন্টা’র করে দেওয়া হয়।

Reply