“বাংলাদেশের মুখ্যমন্ত্রী হাসিনা!’”,রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করতে গিয়ে ফের বেফাঁস মন্তব্য দিলীপের

পশ্চিমবঙ্গ থেকে ছয়জন আলকায়দা জ’ঙ্গি গ্রেফতারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। একইসঙ্গে বাংলার রাজনৈতিক মহলের একে অপরকে দোষারোপ করতে ব্যস্ত। এই নিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মাঝে সরব হয়েছিলেন।

বাংলায় জ’ঙ্গিদের আস্তানা নিয়ে রাজ্য সরকারকে দুষলেন তিনি। এদিন খাবার ও জ’ঙ্গী কার্যকলাপ নিয়ে সরব হয়ে,বাংলাদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে হাসিনার নাম করে হাসির খোরাক হয়ে উঠলেন তিনি।

আল কায়েদা জ’ঙ্গি প্রসঙ্গে নিজের বক্তব্য রাখতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন,”রাজ্যে যতগুলো জ’ঙ্গি ধরা পড়েছে তা কেন্দ্রীয় সংস্থাই ধরেছে। দুর্নীতির তদন্ত করতে সিবিআই যখন গিয়েছে তখন তাঁদের ধরে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী নিজে অফিসারকে আড়াল করেছেন।

খাগড়াগড় বিস্ফোরণ, শিমুলিয়া মাদ্রাসায় জ’ঙ্গি কার্যকলাপ হলেও তদন্ত করতে দেয়নি। একাধিক জায়গায় এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। পিংলায় হয়েছে। অতি সম্প্রতি নৈহাটিতে বড় বিস্ফোরণ হয়েছে। তবে তার তদন্ত হয়নি। রাজ্য সরকার সব চেপে দেওয়ার চেষ্টা করছে।

কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে কাজ করতে দিচ্ছি। তাই যারা জ’ঙ্গি কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত তারা বুঝে গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ নিরাপদ জায়গা। এখানে এসে যা ইচ্ছা তাই করো কেউ বাধা দেবে না।”

সবই ঠিক ছিলো। নিয়ম-নীতি মেনে প্রথম দিক থেকে যেভাবে তিনি রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করেছেন আবারো রাজ্য সরকারের বিরোধিতা করলেন দিলীপ ঘোষ। পশ্চিমবঙ্গের সরকার কে কটাক্ষ করতে গিয়ে বাংলাদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শেখ হাসিনার নাম নিলেন তিনি।

বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের এহেন মন্তব্য নিয়ে রাজনৈতিক মহলে চাপানউতোর শুরু হয়েছে। রাগের বসে কিংবা ভুলবশত এমন কথা বলেছেন বলেই অনেকে দাবি। কোন দিকে দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য নিয়ে নেটিজেন মহলে রোল উঠেছে।

Reply