টাকা খেয়ে গরু পাচারে সাহায্য করছে বিএসএফ, তৃণমূল! বিস্ফোরক দাবি অধীর চৌধুরীর

গরু পাচার নিয়ে তদন্ত করতে একদিকে গোটা রাজ্যজুড়ে তল্লাশি চালাচ্ছে সিবিআই। ঠিক সেই সময় এই চক্রের সঙ্গে রাজ্য সরকারের হাত আছে বলেই বিস্ফোরক অভিযোগ করেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। শুধু তাই নয়, তৃণমূলের ভোটের টাকার বড় অংশ গরু পাচারের থেকে আসে বলেও এদিন দাবি করেন তিনি।

গরু পাচার চক্রের তদন্তের কিনারা করতে দক্ষিণবঙ্গ থেকে উত্তরবঙ্গ- তল্লাশির আওতায় রেখেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। একযোগে এত বড় তল্লাশি এর আগে পশ্চিমবঙ্গে কখনও হয়েছে কিনা তা মনে করা যাচ্ছে না। ইতিমধ্যেই গরু পাচারকারী চক্রে নাম জড়িয়েছে বিএসএফ এবং কাস্টমসের। এবার সেই পাচারকারীদের সঙ্গে তৃণমূলের নেতাদের যোগ আছে বলে দাবি করেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

অধীরবাবুর কথায়, ‘গরু পাচার হওয়ার সময় পকেটে করে বা মানিব্যাগে করে পাচার হয়নি।’ তাঁর দাবি, এই চক্রের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন তৃণমূল নেতারা। বিএসএফ, তৃণমূল নেতা একযোগে টাকা খেয়ে গরু পাচারে সাহায্য করেছে। এমনকি গরু পাচার করেছে টাকা উঠেছে সেই টাকা তৃণমূলের পার্টি ফান্ডে চাঁদা হিসেবেও নেওয়া হয়েছে বলে এদিন দাবি করেন তিনি।

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই গরু পাচারকারীদের সঙ্গে জে”এম’বি জ’ঙ্গি’গো’ষ্ঠীর সম্পর্ক আছে বলে মনে করছে তদন্তকারীরা। এমনটাই জানা গিয়েছে সিবিআই সূত্রে। বর্ডারে যে সমস্ত গরু পাচার হতো তার নিলামের মাধ্যমে কিনে নিত পাচারকারীরা। পাচার হওয়া গরুর বিনিময়ে এপারে আসত আ’গ্নে’য়া’স্ত্র, টাকা ও সোনা। সেই আ’গ্নে’য়া’স্ত্র ও টাকা পৌঁছে যেত জ’ঙ্গি’দের কাছে। গরু পাচার করেছে টাকা পাওয়া যেত সেই টাকা ভাগ হতো এক বিশাল গোষ্ঠীর মধ্যে। সেই গো’ষ্ঠীর সঙ্গে আর কারা কারা জড়িত সে বিষয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে তদন্ত।

Reply