কৃষকরাই আত্মনির্ভর ভারতের মেরুদণ্ড, বার্তা মোদীর

দেশ জুড়ে কৃষি বিলের বিরোধিতায় সরব হয়েছেন কৃষকরা। দীর্ঘ দিনের শরিক অকালি দল পর্যন্ত জোট ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছে। এমন অবস্থায় ‘মন কি বাত’অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কৃষকদের কাছে টানার চেষ্টা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জানিয়ে দিলেন, যে আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলার স্বপ্ন দেখছেন তিনি, তাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন দেশের কৃষকরা।

রবিবার ‘মন কি বাত’-এর ৬৮তম পর্বে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘করোনা সঙ্কটের মধ্যেও দেশের কৃষিব্যবস্থা মজবুত ও স্থিতিশীল রয়েছে। আসলে এর মাধ্যমে দেশের কৃষকভাইদের আত্মবিশ্বাসেরই প্রতিফলন ঘটেছে। এই কৃষক ভায়েরাই আত্মনির্ভর ভারতের ভিত। আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলায় কৃষক ভায়েদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাঁদের মনোবলের উপর ভর করেই দেশ শক্তিশালী হয়ে উঠতে পারে।’’

তাঁর সরকার কৃষকদের হাত মজবুত করছে বলেও এ দিন মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী। যে এপিএমসি-র মাধ্যমে এত দিন সরকারের কাছ থেকে ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য নিশ্চিত ছিল কৃষকদের। নয়া বিলে তা নিয়ে ধোঁয়াশা থাকাতেই দেশ জুড়ে প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন কৃষকরা। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য, শুধুমাত্র সরকারের ভরসায় আর বসে থাকতে হবে না কৃষকদের। যখন যেমন ইচ্ছা, যাকে ইচ্ছা, ফসল বিক্রি করতে পারবেন তাঁরা।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথায়, ‘‘কৃষকদের হাত আরও শক্ত হচ্ছে। দেশের কৃষিক্ষেত্রে উন্নয়ন ঘটছে। এখন থেকে যে কোনও ফসল বিক্রি করতে পারবেন কৃষকরা। শুধুমাত্র ফল বা শাক-সবজি নয়, চাল, গম, আখ, যার কাছ থেকে বেশি দাম পাবেন, তাকেই বিক্রি করতে পারবেন।’’ উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে কৃষিক্ষেত্রের আরও বিকাশ ঘটবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।’’

করোনা পরিস্থিতিতে সাধারণ জীবনযাপনে বড় ধরনের পরিবর্তন এসেছে। বাড়ির বাইরে পা রাখাও এখন দায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে পরিবারকে এক সুতোয় বেঁধে রাখার ক্ষেত্রে গল্প বলা এবং শোনার অভ্যাসকে জিইয়ে রাখার পরামর্শও দেন প্রধানমন্ত্রী। দেশের স্বাধীনতার জন্য যাঁরা আত্মবলিদান দিয়েছেন, নিজের হাতে করে যাঁরা এই দেশ গড়ে তুলেছেন, গল্পের আকার নতুন প্রজন্মের কাছে তাঁদের লড়াইয়ের কথা পৌঁছে দেওয়ার সুপারিশ করেন তিনি।

Reply