ঘরে নেই একটিও টাকা, অসহায় দিন আনা দিন খাওয়া দরিদ্র ক্ষেতমজুরের পাশে দাঁড়ালেন আনন্দ মহিন্দ্রা

দিন আনা দিন খাওয়া এক দরিদ্র ক্ষেতমজুরের পাশে দাঁড়ালেন মহেন্দ্র গ্রুপ অফ কোম্পানির চেয়ারম্যান আনন্দ মহিন্দ্রা। না ওই খেটে খাওয়া মানুষটা আনন্দ মহিন্দ্রা কে চেনেন না। না চেনাটাই স্বাভাবিক, পরিবারের লোকেদের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করতে হয় তাকে।একে দারিদ্রতার বোঝা মাথায়, তার ওপর সন্তান প্রতিপালনের চিন্তা। বহির্জগৎ সম্পর্কে খোঁজ রাখার ফুরসত নেই তার। তাই স্বভাবতই শোভারাম পরিহারের কাছে আনন্দ মহিন্দ্রা একটি অপরিচিত নাম।

সম্প্রতি খবরের শিরোনামে এসেছিলেন শোভারাম। ছেলেকে ১০৬ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে দিতেন দরিদ্র পিতা সুভারাম পরিহার। প্রসঙ্গত, দরিদ্র দিনমজুর শোভানামের ছেলে আসিস মধ্যপ্রদেশ বোর্ডের দশম শ্রেণীর পরীক্ষায় দুটি বিষয়ে উত্তীর্ণ হতে পারেনি।

সেই দুটি বিষয়ের পুনঃপরীক্ষা আয়োজন করা হলে পরীক্ষা কেন্দ্রে ১০৬ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে বাবা পৌঁছিয়ে দেয় আশীষ কে।এই খবরটি সংবাদমাধ্যমের প্রকাশ্যে আসার পর সেটি আনন্দ মহিন্দার দৃষ্টিগোচর হয় এবং সে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন ওই দরিদ্র শ্রমিকের দিকে।উক্ত খবরটি নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে পোস্ট করে আনন্দ মহেন্দ্র লেখেন,একজন বীর বাবা। যিনি সন্তানের বড় হওয়ার স্বপ্ন দেখেন, আর এই ভাবেই একটা দেশ এগিয়ে যায়। আশিসের পড়াশোনার জন্য আমাদের ফাউন্ডেশন সাহায্য করতে পারলে খুশি হবে।’

সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে শোভারাম জানান, তিনি আনন্দ মহেন্দ্রা কে চেনেন না কিন্তু তার এহেন উদ্যোগে শোভারামের সাহায্য প্রার্থী হওয়ায় খুব স্বাভাবিক ভাবেই সে আপ্লুত।

Reply