সংঘাতে দুই দল, হুঙ্কার দিলীপের

মুখ্যমন্ত্রী জেলায় আসার চার দিন আগে নিজের ‘খাসতালুক’ খড়্গপুর শহরে এলেন সাংসদ তথা বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। গেলেন সবংয়ের বুড়ালেও। সেই সভায় যোগ দিতে আসার পথে সবংয়ের মোহাড়ে তৃণমূল-বিজেপি গোলমালও হল।

শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রথমে মোহাড়ে যান দিলীপ। পরে আসেন খড়্গপুরের রামমন্দিরের সামনে সভাস্থলে। দু’টি সভাই ছিল কৃষি আইনের সমর্থনে। তবে দিলীপ সবং পৌঁছনোর আগেই মোহাড়ে তৃণমূল-বিজেপি গোলমালে উত্তেজনা ছড়ায়। অভিযোগ, সভায় আসার পথে বিজেপির কর্মীদের আটকানোর চেষ্টা করে তৃণমূল। অশান্তিতে তৃণমূলের একটি কার্যালয় ও কয়েকটি মোটরবাইক পুড়ে যায়।

তৃণমূল সাংসদ মানস ভুঁইয়ার অভিযোগ, ‘‘পাশের ময়না ব্লকের বাকচা থেকে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা বোমা-বন্দুক-লাঠি নিয়ে হামলা চালিয়ে আমাদের কার্যালয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। ৪০টি বাইক পুড়িয়ে দেওয়া হয়।’’ তৃণমূলের বিরুদ্ধে বোমাবাজির পাল্টা অভিযোগ করেছেন বিজেপি নেতা শিশির কুলভি। খড়্গপুরের যে রামমন্দিরের সামনে সভা করে বিজেপি, সেখানেই কয়েকদিন আগে বিজেপির কয়েকজন তৃণমূলে যোগদান করেছিলেন। যদিও বিজেপির কেউ তৃণমূলে যায়নি দাবি করে দিলীপ এ দিন বলেন, “চ্যালেঞ্জ করছি খড়্গপুর আবার জিতব। পুরসভাও জিতব, বিধানসভাও জিতব। পুলিশ দেখিয়ে, গুন্ডা দেখিয়ে কেউ জিততে পারবে না। পুলিশ ছাড়া লড়ে দেখাও।”

Reply