১০০দিনের কাজের ৯লক্ষ টাকা লুটের অভিযোগ, গ্রেফতার বিজেপি পঞ্চায়েত প্রধান

১০০ দিনের কাজের ঢাকার তছরুপের অভিযোগ উঠল বিজেপির পঞ্চায়েত প্রধানের বি’রুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে। গোপালনগর থানার চৌবেড়িয়া ২ পঞ্চায়েত এলাকায়। সুপারভাইজার এবং উপপ্রধান এই বিষয়ে জড়িত রয়েছেন বলে সূত্রের খবর।

১০০ দিনের কাজ না হলেও ৯ লক্ষ টাকা তুলে নিয়েছেন উল্লিখিত ব্যক্তিরা। যদিও নিজেদের বি’রুদ্ধে এই সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিন জনেই।

স্থানীয়দের বক্তব্য অনুযায়ী,মামুদপুর কলোনি এলাকার পার্বতী খালের প্রায় ২০০মিটার এলাকায় কাজের নাম করে ৯ লক্ষ টাকা তুলে নিয়েছেন পঞ্চায়েত প্রধান, উপপ্রধান এবং সুপারভাইজার। কিন্তু কাজ হয়নি।

এই নিয়ে এলাকার এক ব্যক্তি মহকুমাশাসক ও ব্লক আধিকারিকের কাছে অভিযোগ জানান। দাবি ওঠে সঠিক তদন্তের। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে পোস্টার হাতে বিক্ষোভ শুরু হয়।

স্থানীয় ব্যক্তি শুভাশিস হালদার জানিয়েছেন,”আমরা প্রধান নমিতাদেবীকে বারবার বলেছি। কিন্তু উনি আমাদের কথায় কোনও গুরুত্ব দেননি। এরপরই মহকুমা শাসক ও ব্লক আধিকারিকের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ জানিয়েছি।”

টাকা তছরুপের বিষয় নিয়ে প্রধান নমিতা রায়কে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন,বনগাঁর একমাত্র বিরোধী পঞ্চায়েত চৌরেড়িয়া। স্থায়ী শাসক দল চক্রান্ত করে তাদের বিরুদ্ধেই সমস্ত অভিযোগ এনেছেন। এই অভিযোগ একেবারে ভিত্তিহীন। তাছাড়া প্রথমদিকে সাংবাদিকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন তিনি। কথা বলতেও অস্বীকার করেন।

Reply