অনলাইন ক্লাসে বাধা! গ্রামে নেই কোনো ইন্টারনেট টাওয়ার, গ্রামে টাওয়ারের বসিয়ে দিলেন সোনু সুদ

ক’রো’না পরিস্থিতিতে দেশজুড়ে স্কুল কলেজ সব ই বন্ধ।অনলাইন কাজের মাধ্যমে সরকার শিক্ষাব্যবস্থা চালু করলেও গ্রাম অঞ্চলের অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের কাছে তা আজও অধরা। এই সমস্যার সমাধান করতে ত্রাতা রূপে অবতীর্ণ হন সনু সুদ।

প্রসঙ্গত লকডাউন চলাকালীন বহু পরিযায়ী শ্রমিক কে ঘরে ফিরিয়ে ছিলেন তিনি।এছাড়াও বিদেশে পাঠ রত অনেক ছাত্রছাত্রী কে দেশে ফিরিয়ে আনতে মুখ্য ভূমিকা গ্রহণ করেন সনু সুদ। রিল লাইফে তিনি ছিলেন হলেও রিয়েল লাইফে তিনি ত্রাতা ধরা দিয়েছেন বারবার।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায় গাছের ডালে চলে অনলাইন ক্লাসের জন্য মোবাইলের ইন্টারনেট কানেকশন পাওয়ার প্রচেষ্টা করছে একটি পড়ুয়া। জানা যায় এই ভিডিও চণ্ডীগড়ের মোর নির দাপানা গ্রামে তোলা হয়েছে।বিষয়টি নজরে আসে সোনু সুদের। তিনি ও তার বন্ধু করন গিলহত্রা সমস্যা সমাধানের জন্য প্রচেষ্টা শুরু করেন।

সনু সুদ ও করন চন্ডিগড় এর একটি সরকারি স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের স্মার্টফোনের ব্যবস্থা করেন।কিন্তু তারা উপলব্ধি করেন স্মার্টফোন এলেই হবে না অনলাইন ক্লাসের জন্য চাই উপযুক্ত ইন্টারনেট পরিষেবা। তাই তিনি এবার ব্যবস্থা করেছেন মোবাইল টাওয়ার বসানোর।

তিনি ও করন ইন্দাস টাওয়ার ও এয়ারটেল এর সহযোগিতায় চণ্ডীগড়ের মোরনি এলাকায় একটি মোবাইল টাওয়ার বসানোর ব্যবস্থা শুরু করেছেন। এই প্রসঙ্গে সনুর বক্তব্য, বাচ্চারা ই এদেশের ভবিষ্যত সে ক্ষেত্রে উপযুক্ত শিক্ষা ব্যবস্থা খুবই প্রয়োজন। কার সাথে তিনি এও জানান ওই প্রত্যন্ত গ্রামে মোবাইল টাওয়ার বসানোর মত ভালো কাজে যুক্ত থাকায় তিনি অত্যন্ত সম্মানিত বোধ করছেন।

এই প্রসঙ্গে ইন্দাস টাওয়ার এর পাঞ্জাব হরিয়ানা বিভাগের সিইও গগন কাপুর জানিয়েছেন, এই প্রজেক্টে যুক্ত থাকতে পেরে তিনি অত্যন্ত খুশি ।দেশের এই পরিস্থিতিতে ছাত্র-ছাত্রীদের পাশে দাঁড়ানো তাদের কর্তব্য। এই মহান কাজে যুক্ত থাকতে পেরে তিনি নিজেকে অত্যন্ত ভাগ্যবান মনে করছেন।

Reply