ক্ষমতায় এলে কাউকে শান্তিতে থাকতে দেব না, সুদে-আসলে জবাব দেব’, বললেন দিলীপ ঘোষ

বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্যের উপর আক্র’ম’ণে’র বিষয় নিয়ে সরব হলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ডায়মন্ড হারবারে এসডিও অফিসারের সামনে বিক্ষোভ মিছিলে যোগদান দিলীপ। সেখানে সৌমিক ভট্টাচার্যের উপর আ’ক্রম’ণের বিষয় নিয়ে শাসক দলকে দুষলেন তিনি। হুঁশিয়ারি দিলেন,”ছ’মাস পর নবান্নে বসে সব আ’ক্রম’ণের শোধ তুলব।”

বিজেপির রাজ্য সভাপতি সৌমিক ভট্টাচার্যের ওপর হাম’লার প্রতিবাদে রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করে বলেন,”পুলিশ অফিসাররা তৃণমূলের গু’ন্ডা’দের রক্ষা করছেন। ছ’মাস পর নবান্নে রাজত্বে এসে সব সুদে-আসলে শোধ নেবো। ওইসব তৃণমূল নেতা, গু’ন্ডা আর পুলিশ অফিসারদের শ্রীঘরে পাঠাবই।

সারাজীবন বউ-বাচ্চার মুখ দেখতে পাবে না ওরা।” দিনের পর দিন বিজেপি কর্মীদের প্রসঙ্গে শাসকদলের হাত রয়েছে বলে একরাশ ক্ষোভ উগরে দিলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন,”যে তৃণমূলের নেতা আর পুলিশ এখন বিজেপি কর্মীদের খু-‘ন করছে, মা-‘রছে, তাদের সাবধান করে দিচ্ছি।

ছ’মাস পর আমরাই নবান্নে রাজত্ব করব। কোনও বাপ, আল্লা, ভগবান কেউ বাঁচাতে পারবে না। কুত্তার মতো মা”রব। খড়গপুরের মতো জায়গায় মা’ফি’য়ারাজ শেষ করে দিয়েছি। সব মাটিতে পুঁ’তে দিয়েছি। আর এগুলো তো সামান্য।

চাকা ঘুরতে শুরু করেছে। কাউকেই তখন শান্তিতে থাকতে দেব না। বাড়ি থেকে বার করে রাস্তায় ফেলে মা’-রব ওই তৃণমূলের গু’ন্ডাদের। তৃণমূলের পার্টি অফিসে লাগানো হবে বিজেপির পতাকা।”

বিজেপি নেতা তথা আইনজীবী মনিশ শুক্লা খু-‘নে’র বিষয় নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কে উদ্দেশ্য করে দিলীপ ঘোষ বলেন,”দিদিভাই পারলে সিবিআই তদন্তের দাবি জানান। কেঁচো খুঁড়তে সা’প বেরিয়ে আসবে।” পাথরপ্রতিমা থেকে ডায়মন্ড হারবারে ফেরার পথে কয়েকটি জায়গায় তৃণমূলের কর্মীরা দিলীপ ঘোষকে কালো পতাকা দেখান।

এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন,”কুছ পরোয়া নেহি। অনেক বেশি সংখ্যক বিজেপি কর্মী ফিরতি পথে ফুল ছুঁড়ে অভিবাদন জানিয়েছেন। চাকা ঘুরতে শুরু করেছে বোঝাই যাচ্ছে। সাধারণ কর্মী থেকে নেতা-নেত্রী কেউই আর তৃণমূলে থাকবে না। সকলেই বিজেপিতে আসতে চাইছে। সবাইকেই নেওয়া হবে কিন্তু স্যানিটাইজ করে নেওয়া হবে।”

Reply