বিহার বিধানসভা নির্বাচন: টিকিট না পেয়ে বিজেপি সহ সভাপতি সহ তিন নেতা এলজেপিতে

আসন্ন বিহার বিধানসভা নির্বাচনে আসন রফা হয়েছে বিজেপি ও জেডিইউয়ের মধ্যে। ২৪৩ আসনের বিধানসভায় ১২২টি আসনে লড়াই করছে নীতিশ কুমারের জেডিইউ। ১২১টি আসনে লড়ছে বিজেপি। এই নির্বাচনে বিজেপি ও জেডিইউ একসঙ্গে লড়লেও একা লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনডিএ-র জোটশরিক এলজেপি।

আসন ভাগাভাগির পরদিনই রাজ্যস্তরে বিজেপির তিন শীর্ষস্থানীয় নেতা এলজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য চিরাগ পাসওয়ানের সঙ্গে দেখা করেন। জানা গিয়েছে, বিজেপি থেকে টিকিট না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে এলজেপিতে যোগ দিয়েছেন তারা। এঁদের মধ্যে একজন রাজ্য বিজেপির ভাইস প্রেসিডেন্ট রাজেন্দ্র সিং। বিজেপি থেকে পদত্যাগ করার পর মঙ্গলবারই চিরাগ পাসওয়ানের সঙ্গে দেখা করেন তিনি।

২০১৫ সালের বিধানসভা নির্বাচনে গেরুয়া শিবিরের সম্ভাব্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে বিবেচিত হয়েছিলেন রাজেন্দ্র সিং। গতবার তিনি যে আসন থেকে লড়েছেন, সেই দিনারা আসনটি এবারে জেডিইউকে ছেড়েছে বিজেপি। মনে করা হচ্ছে এলপিজি প্রার্থী হিসেবে এই দিনারা থেকে লড়বেন তিনি।

একই ঘটনা ঘটেছে প্রবীণ বিজেপি নেত্রী উষা বিদ্যার্থীর ক্ষেত্রে। তিনি পালিগঞ্জের বিজেপি বিধায়ক। পাশাপাশি তিনি বিহার উইমেন্স কমিশনের সদস্য। কিন্তু এই পালিগঞ্জের আসনটিও এবারে জেডিইউর দখলে থাকায় টিকিট পাননি ঊষা বিদ্যার্থী। ফলে বুধবার চিরাগ পাসওয়ানের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। চিরাগ পাসওয়ান জানিয়েছেন, ঊষা বিদ্যার্থীকে পালিগঞ্জের আসনের টিকিট দেওয়া হবে।

বিজেপির চারবারের বিধায়ক এবং উত্তরপ্রদেশ বিজেপির কো-ইনচার্জ রামেশ্বর চৌরাসিয়াও চিরাগ পাসোয়ানের দলে নাম লিখিয়েছেন আজ।

Reply