“বিহারের মতো গু’ন্ডারাজ চলছে বাংলায়”, বেফাঁস মন্তব্য করে দলকেই বিপাকে ফেললেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের

বাংলার শাসক দলকে কটাক্ষ করতে গিয়ে দিলীপ ঘোষের সুরে মন্তব্য করে বসলেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়।তিনি বলেন,”রাজ্যে বিহারের কালচার আমদানি করেছে তৃণমূল। পশ্চিমবঙ্গে গু’ন্ডারাজ চলছে।”

শেষ পর্যন্ত বিহার সরকারের সঙ্গে বাংলার তুলনা করে বসলেন রাজু। এদিন পূর্ব বর্ধমান জেলার কাছে জাতীয় সড়কের ধারে কৃষি আইন এর সমর্থনে এক সভার আয়োজন করা হয়। সেখানেই যোগদান করেন বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিনের সভায় মঞ্চে দাঁড়িয়ে রাজ্যের শাসক দলকে তীব্র কটাক্ষ করতে গিয়ে শেষ পর্যন্ত বিহার সরকারের প্রসঙ্গ টেনে আনেন তিনি। কিছুদিন আগে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন,”বাংলায় উত্তরপ্রদেশ ও বিহারের মত মা’ফিয়ারাজ চলছে”।

দিলীপ ঘোষের এই বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছেন বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন,”রাজ্যে গু’ন্ডারাজ চালু করেছে তৃণমূল। রাজ্যে শুটআউট ছিল না, কন্ট্রাক্ট কি-লিং ছিল না, যেটা আজকে বিহার থেকে লোক এনে বিহারের কালচার পশ্চিমবঙ্গে চালু করেছে তৃণমূল।

বাংলার বুকে জামতাড়া গ্যাং চালাচ্ছে।” দিলীপ ঘোষকে সমর্থন করলেও এদের রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তরপ্রদেশের মা’ফিয়ারাজ নিয়ে বিভিন্ন প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। তিনি বলেন,”উত্তরপ্রদেশে কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি, মা’ফিয়ারাজ শুরু করেছিল। এখন যোগীজি সেই মা’ফিয়ারাজকে খতম করছেন।”

বিজেপি নেতা প্রথম আইনজীবী তথা মণীশ শুক্লা খু’-নের ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশকে দোষারোপ করেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন,”পুলিশ তৃণমূল কর্মীর মত আচরণ করছে। আর বেশিদিন নেই। ওইসব পুলিশকর্মীদের তুলে নিয়ে তৃণমূল কার্যালয়ে বসিয়ে দেব আমরা।”

বেশ কয়েকদিন আগে কালনার এক সভা থেকে মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে বিকাশ দুবের মতো এন’কাউ”ন্টা’রের হু’মকি দেওয়ার মতো অভিযোগ উঠেছিল রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে। শাসক দলে ছেড়ে কথা বলেনি।

তৃণমূলের রাজ্যের মুখপাত্র দেবু টুডু হুমকি দিয়েছিলেন, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় জেলায় এলেই মা-বোনেরা ঝাঁটা পেটা করবে। ছবি প্রসঙ্গ তুলে রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন বলেন,”আমি এসেছি। তুমি যত বড়ই নেতা হও আমাকে আটকাতে পারবে না। আর বলে গেলাম, আমি তোমাকে এই মাটিতে থাকতেই দেব না।”

Reply