“স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া, তাই এ ওকে আই লাভ ইউ বলছে”,বাম কংগ্রেস জোট নিয়ে কটাক্ষ দিলীপের

একুশের বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাম কংগ্রেসের জোট শক্তির ক্ষেত্রে কেন্দ্র কোন বাধা হয়ে দাঁড়াবে না এমনটাই মন্তব্য করেছেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী। ফের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হওয়ার পর শুক্রবার প্রথমে রাজ্যের কংগ্রেস নেতৃত্বের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করেন অধীর।

জানা গিয়েছে, এই দিনের বৈঠকে সংগঠন নিয়ে আলোচনা হওয়ার পাশাপাশি স্থির করা হয়েছে,এখন থেকে যে কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে তা আগে থেকে বামেদের জানিয়ে তবে করা হবে। কিছুদিন আগে নিট পরীক্ষা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী এবং সোনিয়া গান্ধীর একই মনোভাব রাজনৈতিক মহলে এক অন্য জল্পনার তৈরি করেছে।

তবে কি কাছাকাছি আসতে পারে তৃণমূল এবং কংগ্রেস। কিন্তু কিছুদিন আগেই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদে বসানো হয় অধীর রঞ্জন চৌধুরী কে।তিনি ঘুর মমতা বিরোধী এবং বামেদের সঙ্গে জোট গঠনের পক্ষপাতী। বামেদের সঙ্গেই কংগ্রেসের জোটে সম্মতি রয়েছে কংগ্রেসের।

অধীরের এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়েছে বামেরা। তবে বিজিপি মহলে এই নিয়ে যথেষ্ট সরগরম রয়েছে। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন,”জোট তো আছেই ওনাদের। সে তো আগে থেকেই আছে। যখন স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কোন গন্ডগোল হয় তখনই তার মেসেজ দিতে হয়।

সেরকম কোনো গন্ডগোল কিছু হচ্ছে বোধহয়। সেজন্যই বারবার বলতে হচ্ছে আই লাভ ইউ, আই লাভ ইউ। এটা বলার কোন মানেই হয়না। সেই যেন চির ধরে যাচ্ছে নিশ্চয়ই। বাইরে থেকে তালা বাটির আওয়াজ হচ্ছে যখন কিছু গন্ডগোল হচ্ছে।”

এই নিয়ে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন,”এইটা তাদের নিজেদের দলের ব্যাপার। যেহেতু আমরা এক কালে কংগ্রেস করতাম, মমতা ব্যানার্জি কে ধন্যবাদ জানাই যে তৃণমূল কংগ্রেস করেছে। কারণ যে সিপিএম আমাদের ৫০ হাজার কর্মী খু’-ন করেছে। তখন ছিল এ টিম আর এখন হলো বি টিম। করলে ভালো,তারা নিজেরা ল’-ড়ুক। আমাদের কাছে বিজেপিও কিছু না আর সিপিআইএম কিছু না। এরা জোট করলে সেটাও কিছু না।” এর থেকে বোঝা যায় বাম এবং কংগ্রেস জোট নিয়ে কটাক্ষ চড়িয়েছে তৃণমূল এবং বিজেপি।

Reply