“পাগড়ি বলে টেনে খুলেছে, গোল টুপি থাকলে পারতো না”, ফের বিতর্কিত মন্তব্য দিলীপের

প্রিয়াংশু পাণ্ডের নিরাপত্তারক্ষী বলবিন্দর সিং।তিনি আ’-গ্নে’-য়া’স্ত্র-সহ বিজেপির মিছিল থেকে জিটি রোডে ধরা পড়েছেন আর তাকে ধরার সময় তার পাগড়ি টেনে খুলে দেন পুলিশ। এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হন শিখ সম্প্রদায়ের অনেকে। স্বাভাবিক ভাবেই এই ঘটনা নিয়ে সুর চড়ায় বিজেপি।

শনিবার বর্ধমানে সাংবাদিকদের বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ” শিখ বলেই পুলিশ এমনটা করতে পেরেছে,গোল টুপি মাথায় থাকলে এটা পারত না।নবান্ন অভিযানে বিজেপি কর্মীরা মার খেয়েছেন, লাঠি খেয়েছেন আর উল্টে তাদেরই মামলা দেওয়া হয়েছে”।

বিজেপির দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে এদিন বর্ধমানে আসেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দুপুরে বর্ধমানের উল্লাস মোড়ে তিনি আসেন আর তাকে স্বাগত জানাতে দলীয় কর্মীরা জমায়েত হন। উল্লাস মোড় থেকে মোটরবাইক র‍্যালি করে তাকে স্বাগত জানানো হয়।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ” যে বলবিন্দর বিজেপি যুব মোর্চার এক নেতার দেহরক্ষী। বেসরকারি নিরাপত্তরক্ষী বলবিন্দরের পি’-স্ত’লটির বৈধ লাইসেন্স আছে বলে তিনি জানান।” ভার’তীয় অ-‘স্ত্র আইনের আওতায় বলবিন্দরের বিরু’দ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে কারন তার পি’-‘স্তলের লাইসেন্স রাজৌরির আর বাংলায় সেটা গ্রাহ্য নয়।

পুলিশের তরফ থেকে এই ঘটনার সাফাই দেওয়া হয়েছে। তারা ভিডিও দিয়ে জানিয়েছে যে কোনো পুলিশ পাগড়ি খোলে নি, ধস্তাধস্তিতে আপনা থেকেই খুলে গেছে আর তারা সব ধর্মকে সম্মান করেন।

তারা আরও জানায় যে অ্যারেস্ট করার আগে বলবিন্দরকে পাগড়ি পরে নিতে বলা হয়েছিল, প্রমাণস্বরূপ পুলিশ ভ্যানের পাশে পাগড়ি পরিহিত বলবিন্দরের ছবি পোস্ট করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে যে থানায় নিয়ে যাওয়ার আগের ছবি সেটি।

Reply