রোগী-ভর্তি নিয়ে বচসা, তৃণমূলনেত্রীর ঘনিষ্ঠ পরিচয়ে চিকিৎসককে বেধড়ক মার…

ফের চিকিৎসক নিগ্রহের অভিযোগ উঠল রোগীর পরিবারের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে পাঁশকুড়ার বড়মা কোভিড হাসপাতালে। করোনা হাসপাতালে সাধারণ রোগীকে ভরতি না নেওয়ায় ব্যাপক ভাঙচুর ও চিকিৎসককের উপর হামলা চালায় রোগীর বাড়ির লোকজন। রবিবার রাতের এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ায় হাসপাতাল চত্বরে।

জানা গিয়েছে, রবিবার রাতে কলকাতার ১০-১২জনের একটি দল পাঁশকুড়ার একটি হোটেলে পার্টিতে যোগ দেন। সেখানে রাত ১২টা নাগাদ একজন অসুস্থ হয়ে পড়েন। সঙ্গীরা অসুস্থ ব্যক্তিকে নিয়ে বড়মা হাসপাতালে যান। নিরাপত্তারক্ষীরা কোভিড হাসপাতালে সাধারণ রোগীর ভর্তি হয় না বলে বার বার অনুরোধ করার পরও রক্ষীকে মারধর করে জোর করে আইসিইউেত নিয়ে যান।

চিকিৎসকেরা সাধারণ ওই রোগীকে ভর্তি নিতে অস্বীকার করলে তাঁকেও মারধর করা হয়। শুধু তাই নয়, তাঁরদ হাসপাতালেও ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ।

আরও জানা গিয়েছে, তারা রাজ্যের শাসক দলের শ্রমিক সংগঠনের এক নেত্রীর ঘনিষ্ঠ পরিচয় দিয়ে রীতিমতো তাণ্ডব চালায়। খবর পেয়ে পাঁশকুড়ার বিডিও, থানার পুলিস এবং কোভিড হাসপাতালের চিকিৎসক টিম যান।

ঘটনায় পুলিস চারজনকে গ্রে’ ফতার করেছে। হাসপাতালের টেকনিক্যাল অফিসার দেবোপম হাজরা বলেন, “১০-১২জনের দলে বেশ কয়েকজন যুবতীও ছিলেন।

প্রত্যেকেই মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। কোভিড হাসপাতালে একজন সাধারণ রোগীকে ভর্তি নেওয়া যায় না, সেটুকু উপলব্ধি করার মতো জায়গায় তাঁরা ছিলেন না। রোগীকে একটি হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পুলিস এসে কয়েকজনকে ধরেছে। আমরা নিরাপত্তার অভাব বোধ করছি।”

Reply