‘আমাদের দেশে অনেকে দলিত-মুসলিম-আদিবাসীদের মানুষ বলে মনে করে না’, যোগীকে কটাক্ষ রাহুলের

ভারতবর্ষে জাতিভেদ প্রথা নিয়ে সরব হলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। অবশেষে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের মানসিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন তিনি। উদাহরণ হিসেবে বেছে নিলেন হাথরাস কাণ্ডকে।

দলিত তরুণী ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তর প্রদেশের সরকারের মনোভাবের তীব্র ধিক্কার জানিয়ে রাহুল গান্ধী বলেন,”আসলে দেশের দলিত, মুসলিম এবং আদিবাসীদের মানুষ হিসেবে গণ্য করে না অনেকে। লজ্জাজনক হলেও এটাই সত্যি।”

হাথরাসের তরুনীর কাণ্ডে প্রথম থেকেই সুর চড়িয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। নিজের দলবল নিয়ে ছুটে গিয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশে। ১৪ অক্টোবর দলিত যুবতীর উপরে হওয়া অশালীন আচরনকে উত্তরপ্রদেশের সরকারের শাসন নীতির নিদর্শন হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন রাহুল গান্ধী।

বিজেপির শাসনকালে দেশের দলিত, মুসলিম এবং আদিবাসীরা অত্যাচারিত, অবহেলিত, অপমানিত, এমনটাও প্রমাণ করতে চেয়েছেন তিনি। অন্য দিকে উত্তরপ্রদেশের পুলিশের দাবি,”হাথরাসে যে কাণ্ডের বিষয়টিকে সবার সামনে তুলে ধরা হচ্ছে সেটি ভুল। সেদিন কোন বা’লা’দকা’র হয়নি।

উত্তরপ্রদেশের পুলিশ মনে করেন, বিরোধীরা চক্রান্ত করে সরকারের বদনাম করার জন্য এই ঘটনা ঘটিয়েছেন। তাতে বিদেশী শক্তির হাত আছে বলে মনে করছেন পুলিশ। এই বিষয়ে কিছু তথ্য সাজিয়েছে উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন।

কিন্তু বিরোধীদের দাবি, এই পুরো বিষয়টি ষড়যন্ত্র। উত্তরপ্রদেশের সরকার উচ্চবর্ণের দোষীদের দোষ ঢাকতে নি’র্যাতিতা তরুণীর পরিবারের ওপর চাপ সৃষ্টি করছে। সেদিন কোনো খরাপ ঘটনা ঘটেনি বলেই জানাচ্ছে তারা।

এদিন রাহুল গান্ধী সকালে টুইট করে বলেন,”আসলে আমাদের দেশে অনেকে দলিত-মুসলিম-আদিবাসীদের মানুষ বলে মনে করে না। পুলিশ এবং মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, কিছু করা হয়নি। কারণ, তারা ওই নি’র্যাতি’তাকে মানুষ বলেই গ’ণ্য করে না।” রাহুল গান্ধীর এই টুইট আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনও শেয়ার করেছেন রাহুল। ওখানে বলা হয়েছে, নির্যাতিতার পরিবার বারেবারে ঘটনার অভিযোগ জানাতে চাইলে, দোষীদের আড়াল করছে সরকার

Reply