“ঠিকাদারি করে নেতাগিরি চলবে না”, তৃণমূল কর্মীদের কড়া বার্তা দিলেন পুরুলিয়া জেলা সভাধিপতি

ঠিকাদারি করে আর নেতাগিরি চলবেনা। মানবাজার বিধানসভা কর্মী সম্মেলনে দলীয় কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে এমনই কড়া বার্তা দিলেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,”এখানে আমাদের দলের কয়েকজন ঠিকাদারি করে ‘নেতাগিরি’ করছেন। তা আর চলবে না। আপনারা সাধারণ কর্মী হয়ে কাজ করুন, স্বাগত। কিন্তু আপনাদের কোনও পদে রাখব না।

গুরুপদ টুডু এদিনের দলীয় কর্মী সম্মেলনের মধ্যে থেকেই কর্মীদের জনসংযোগ বাড়ানোর পরামর্শ দিলেন। রাজ্যের অনগ্রসর শ্রেণিকল্যাণ বিভাগের রাষ্ট্র মন্ত্রী সন্ধ্যারানি টুডু সকলকে একজোট হয়ে ল’ড়ার বার্তা দেন।

দলের কাজ করতে করতেই সরকারি কাজ পেয়ে যান মানবাজারের বেশ কিছু জন তৃণমূল নেতা। তারা কার্যত ঠিকাদারে পরিণত হয়েছেন। এই বিষয়টি জনসাধারণ যেকোনোভাবেই ভালো মনে নিচ্ছে না সেটা আন্দাজ করতে পেরেছে পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেস।

ব্লক সভাপতি থেকে পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটি গড়ার ক্ষেত্রেও দল এই বিষয়টিকে মনে রাখে। ব্লক ও অঞ্চল কমিটি গঠনে তাই একই রাস্তায় হাঁটছে পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন জেলা সভাপতি গুরুপদ মেটে বলেন,”মানুষের সঙ্গে আরও বেশি করে জন সংযোগ বাড়ান। ঘরের দাওয়ায় বসে মানুষজনের কী সমস্যা তা জেনে সমাধান করুন। সরকারি প্রকল্পের সুযোগ–সুবিধাগুলো তুলে ধরুন। যাতে দ্রুত সমস্যা মেটানো যায় তার ব্যবস্থা করুন।”

ক’রো’না আবহে মানুষের পাশে থাকা। অন্যদিক থেকে একজোট হয়ে ল’-ড়াই করার বার্তা। বিধানসভা ভোটের আগে জনগণের সমর্থন কুড়োতে পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেস এই নীতিতেই চলছে। এদিন মন্ত্রী সন্ধ্যারানি টুডু বলেন, “আমরা যদি একজোট হয়ে থাকতে পারি। তাহলে এই মানবাজার বিধানসভায় এমন কোনও শক্তি নেই যাঁরা আমাদের শক্ত ঘাঁটি নড়িয়ে দিতে পারবেন।”

Reply