“পিসি ভাইপোকে একসাথে স্যানিটাইজ করে দূর দূর করে বাংলা থেকে তাড়াবো”,বললেন লকেট চট্টোপাধ্যায়

বছর পেরোলেই সারা বাংলা জুড়ে বিধানসভা ভোট। রাজনৈতিক দলগুলো ইতিমধ্যেই জোর কদমে বিধানসভা ভোটের তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছে। একুশের বিধানসভা ভোটে জিতবে কে? এই নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জল্পনার শেষ নেই। শাসক দলের সঙ্গে বিরোধী দলের রাজনৈতিক লড়াইয়ে এখন তুঙ্গে।

পাড়ায় পাড়ায় মিটিং মিছিল থেকে শুরু করে শাসক দলের দুর্নীতি তুলে ধরতে তৎপর বিরোধীরা। একই সঙ্গে দীর্ঘ ১১ বছর ধরে বাংলার ক্ষমতায় থাকা শাসক দল নিজেদের প্রকল্প উন্নয়ন সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে ওয়াকিবহাল করতে তৎপর। তবে পুরো বিষয়টি নির্ভর করছে জনগণের মিলিত সিদ্ধান্তের ওপর। এবার শাসক দলকে কটাক্ষ করে বিঁধলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

ইতিপূর্বে শাসকদল থেকে বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীরা বিভিন্ন সভায় মঞ্চে বক্তৃতা দিতে গিয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে কথা বলতেন। সেই একই ধারা বজায় রাখলেন বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। সাধারণ মানুষের প্রতি তার অনুরোধ, বাংলার মানুষ যেন যোগ্য উত্তরাধিকারীকে বাংলার সিংহাসনে বসার সুযোগ করে দেন।

নবান্ন অবস্থানের কথা তুলে ধরে লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন,”হাজার হাজার মানুষ শান্তিপূর্ণভাবে নবান্ন অভিযান করেছিলেন। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী তার দুদিন আগেই ভয়ে তালা দিয়ে চলে যায় ঝাড় গ্রামে।

তিনি যদি মানুষের জন্য কাজ করে থাকতেন তাহলে ১৪ তলায় বসে থাকতেন এবং বলতেন কে আসবি আই আমি মানুষের জন্য কাজ করেছি আমার কোন ভয় নেই।কিন্তু তিনি তা করেননি। অতএব তিনি জানেন যে আদতে এই কয়েক বছরে মানুষের জন্য তিনি কিছুই করেননি। টাকা পয়সা সব নেতা মন্ত্রীর খেয়েছেন ।

পুরনো রাস্তাগুলি এখনো সরিয়ে উঠতে পারেননি কিন্তু উদ্বোধন হচ্ছে দিকে দিকে।” তিনি আরও বলেন,”স্যানিটাইজার এর নাম করে নবান্ন কে বন্ধ রাখা হয়েছিল কিন্তু স্যানিটাইজার হবে এবং তা করবে ভারতীয় জনতা পার্টি। পিসি এবং ভাইপোকে উভয়কেই স্যানিটাইজার করে বাংলা থেকে দুর দুর করে তারাবো।”

Reply