“বাংলার মানুষ বিজেপিকে চায়, আগামীদিনে বাংলায় বিজেপিই আসবে।” বললেন লকেট

নবান্ন অভিযানকে কেন্দ্র করে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের ওপর পুলিশি আ’ক্রম”নের চিত্র দেখেছে সারা রাজ্য। এবারও সেই নিয়ে কটাক্ষ করতে ছারলে না সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় শিলিগুড়িকে কেন্দ্র করে উত্তরবঙ্গে দলের ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং সাংগঠনিক বিষয়গুলিকে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বিজেপি কর্মী সমর্থকদের নিয়ে বৈঠক করেন।

সেই বৈঠকে লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন,”বড় ভূমি’ক’ম্পের আগে যেমন ঝড় বৃষ্টি কিংবা থমথমে আবহাওয়া থাকে। বিজেপির নবান্ন অভিযান আসলে সেই ভূমি’ক’ম্পের পূর্বাভাস। ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলায় সরকার গড়বে।”

অভিনেত্রী তথা সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় এর সঙ্গে এ দিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন,বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক অরবিন্দ মেনন, বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সম্পাদক শিব প্রকাশ, জলপাইগুড়ির সাংসদ জয়ন্ত রায়, সাংসদ সুকান্ত মজুমদার, সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক, সাংসদ জন বারলা-সহ অন্যান্য বিজেপি নেতা-নেত্রীরা।

শিলিগুড়িতে হিলকার্ট রোডে জয়মনি ভবনে বিজেপির কার্যালয়ে দলের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির রণনীতি কি হতে পারে সেই সম্পর্কিত আলোচনা করা হয় বৈঠকে। ১৭ অক্টোবর উত্তরবঙ্গ সফরে আসছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। দলীয় কর্মসূচিতে যোগদান করবেন তিনি।

কর্মী সমর্থকদের নিয়ে বৈঠকেই বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে বলেন,”হাথরসের ঘটনা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী পথে নেমেছেন। নিজের রাজ্য ছেড়ে তিনি অন্য রাজ্য নিয়ে রাজনীতি করছেন।

রাজগঞ্জ-সহ বিভিন্ন জায়গায় এই ঘটনা ঘটছে। কিন্তু এখানে মুখ্যমন্ত্রী মিছিল করছেন না।” তিনি আরও বলেন,”বাংলার মানুষ বিজেপিকে চায়। আগামীদিনে বাংলায় বিজেপিই আসবে।”

এদিন রাজ্য বিজেপির সম্পাদক সায়ন্তন বসু জানান,”বর্তমানে তৃণমূলের অস্তিত্ব বিপন্ন। তৃণমূল শুধু রাজনীতি করছে।”বিজেপির নবান্ন অভিযানে পুলিশের আ’ক্রমণ’কে তীব্র নিন্দা জানিয়ে তাকে লজ্জাজনক ঘটনা বলে আখ্যা দেন সায়ন্তন বসু। পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেবকে সায়ন্তন বসু কটাক্ষের সুরে বলেন,”গৌতম দেব নিজের বিধানসভা ক্ষেত্রে ৮০ হাজার ভোটে হরেছেন, তবুও তিনি রাজনীতি করছেন। তাঁর কথার কোনও অর্থ নেই।”

Reply