হাওয়াই চটি পড়ে মন্দিরে মন্দিরে করোনা ছড়াচ্ছে মমতা, আজব মন্তব্য সৌমিত্র খাঁ এর

গোটা বিশ্ব সহ রাজ্য ক’রো’নার সাথে মো’কা’বিলা করছে। তখন থেকেই আমরা দেখতে পেয়েছি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক’রো’না’কে ভয় না পেয়ে, নিজে সব জায়গায় গিয়ে পর্যবেক্ষণ করেছে পরিস্থিতি কেমন রয়েছে। অনেকে মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে অনেক প্রশংসা করেছিলেন আবার অনেকে এই নিয়ে নানা কথা বলেছিলেন।

সম্প্রতি বিজেপি সভাপতি সৌমিত্র খাঁ একটি সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেন এবং সেখানে তিনি বলেন মুখ্যমন্ত্রী পুজোর মন্ডপে গিয়ে নিজের চটির মাধ্যমে মন্দিরে মন্দিরে করোনা ছড়াচ্ছেন।

যেসব পুজো মণ্ডপগুলিতে গিয়ে তিনি উদ্বোধন করছেন সেখানেই তিনি করোনা ছড়াচ্ছেন। এছাড়াও বিজেপি সভাপতি সৌমিত্র খাঁ বলেছেন, এর আগেও মুখ্যমন্ত্রীকে ভিন্ন রাজ্য থেকে পন্য আসার জন্য মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন লরি চাকার মাধ্যমে করোনা ছড়াচ্ছে আমাদের রাজ্যে।

সূত্র ধরেই সভাপতি সৌমিত্র খাঁ বলেন তাহলে আমিও বলতে পারি, মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পূজোর মণ্ডপে উদ্বোধনের মাধ্যমে মন্দিরে মন্দিরে করোনা ছড়াচ্ছেন। তিনি আরো বলেন ডাক্তাররা বলেছেন একটি পণ্যের ওপর করোনা জী’বাণু সক্রিয় থাকে ৮ থথাকে১২ ঘন্টা।তবে আমার এই বিষয়ে জ্ঞান অত ভালো নেই, ডাক্তাররা বেশি ভালো বলতে পারবে এই বিষয়ে, তবে যেটুকু জানি সেটুকু বললাম।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ক্লাবে দূর্গাপূজোর জন্য ২০০০০ টাকা অনুদান নিয়েও কথা বলেছেন বিজেপি সভাপতি সৌমিত্র খাঁ। তিনি এই সম্বন্ধে বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রী ক্লাবে টাকা অনুদান দিয়েছেন, তার পেছনে রয়েছে ২০ টি শর্ত। সৌমিত্র খাঁ বলেন আমিও একজন ক্লাবের প্রেসিডেন্ট তাই আমি ভালো করেই জানি শর্তগুলো কি কি।

তার মধ্যে একটি শর্ত হলো যে ক্লাবগুলিতে দুর্গাপুজোর জন্য টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছে সেই ক্লাবের পুজোতে মমতা ব্যানার্জি কুড়িটি ব্যানার থাকতে হবে। আর প্রতিটি ব্যানারের পেছনে খরচ প্রায় ৮০০০ টাকা কুড়িটি ব্যানার তৈরি করে পুজো মণ্ডপে দিলে পড়ে থাকে ১৬০০০ টাকা।

সৌমিত্র খাঁ এর মাধ্যমে বলতে চেয়েছেন এই টাকা অনুদান এর মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের প্রচার করতে চাইছেন। সাক্ষাৎকারের শেষে সৌমিত্র খাঁ বলেন, কিছুদিন আগে বেলেঘাটাতে যে বিস্ফোরণ দেখা গেছিল, তা এখন বিভিন্ন ক্লাবে দেখা যাবে।

Reply