বিজেপিকে তাড়াতে বাড়িতে বাড়িতে ‘মমতা-ধূপ’!

২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচন যে নিতান্তই সহজ-সরল হবে না তার জ্বলন্ত প্রমাণ রাখছেন তৃণমূল নেতারাই। রাজ্যে খুব কম দিনে জাঁকিয়ে বসেছে বিজেপি। ২০১৯-এর ভোটে উত্থানের পর থেকেই বিজেপি এ রাজ্যে প্রধান বিরোধী দল হয়ে উঠেছে। এবার সেই বিজেপিকে হটাতে এক অভিনব পন্থা নিল তৃণমূল কংগ্রেস। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া ধূপের প্যাকেট বিলি পশ্চিম বর্ধমান জেলার তৃণমূল নেতা মনির মণ্ডল বিজেপিকে মশার সঙ্গে তুলনা করে ধূপকাঠি বিলির সিদ্ধান্ত নিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া ধূপের প্যাকেট বিলি করা হল পাণ্ডবেশ্বর বিধানসভার অন্তর্গত বিভিন্ন বাড়িতে। প্রায় ১০ হাজার প্যাকেট ধূপকাঠির প্যাকেট বিলি করা হল এলাকায়।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া ধূপের প্যাকেট বিলি পশ্চিম বর্ধমান জেলার তৃণমূল নেতা মনির মণ্ডল বিজেপিকে মশার সঙ্গে তুলনা করে ধূপকাঠি বিলির সিদ্ধান্ত নিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া ধূপের প্যাকেট বিলি করা হল পাণ্ডবেশ্বর বিধানসভার অন্তর্গত বিভিন্ন বাড়িতে। প্রায় ১০ হাজার প্যাকেট ধূপকাঠির প্যাকেট বিলি করা হল এলাকায়।

ধূপকাঠি বি্লি করে মানুষের সঙ্গে মত বিনিময় দুর্গাপুজোর আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও জিতেন্দ্র তিওয়ারির ছবি লাগানো ধূপকাঠি বিলি আসলে জনসংযোগের একটা প্রয়াস। এভাবেই তৃণমূল কর্মীরা বাড়িতে বাড়িতে বাড়িতে ধূপকাঠি বি্লি করলেন। মানুষের সঙ্গে মত বিনিময় করলেন। ২০২১ বিধানসবা নির্বাচনের আগে ফের একবার মানুষের পাশে থাকার বার্তা দিলেন তৃণমূল নেতা-কর্মীরা।

বিজেপি-সিপিএম-কংগ্রেসকে মশার মতো তাড়াতে এই ধূপ বিলি করার উদ্দেশ্য প্রসঙ্গে শেখ মনির মণ্ডল বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি এলাকার প্রভূত উন্নতি সাধন করেছেন। এখানে বিজেপি-সিপিএম-কংগ্রেস মশার মতো উড়ে বেড়াচ্ছে। তাদের তাড়াতেই এই ধূপ ব্যবহার হবে, যেখানে লেখা- ‘আমার আপনার আপনজন’। ধূপ জ্বাললেই মশা-সম বিজেপি-সিপিএম-কংগ্রেস পালাবে এলাকা ছেড়ে।

ধূপ বিলি করে তাড়ানোর বার্তায় কোন অভিষন্ধি! ধূপ বিলি করে এলাকায় জনসংযোগ একটা পন্থা হলেও, বিরোধীদের মশার সঙ্গে তুলনা করে তাদের তাড়ানোর জন্য যে ধূপ বিলির ব্যাখ্যা, তা প্রমাণ করে এলাকায় বিরোধী দলের বাড়বাড়ন্ত হয়েছে। আর লড়াইও এবার তীব্র হবে। তাই ধূপ বিলি করে তাদের তাড়ানোর মধ্যে অন্য এক অভিষন্ধিও লুকিয়ে আছে বলে মনে করা হচ্ছে।

Reply