ভারত চিন সীমান্তে ৪৭টি নতুন সেনা আউটপোস্ট আইটিবিপির

লওয়ান ভ্যালি সং’ ঘ’ র্ষে’ র পর থেকে ভারত চিন সীমান্ত সংঘাত যেভাবে বেড়েছে, তা নজিরবিহীন। খোদ বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর জানিয়েছিলেন গত বেশ কয়েক দশকে এরকম উত্তপ্ত সীমান্ত দেখা যায়নি। সেই প্রেক্ষিতকে মাথায় রেখেই ভারত চিন সীমান্তে নতুন করে ৪৭টি বর্ডার আউটপোস্ট বানাচ্ছে আইটিবিপি।

১৯৬২ সাল থেকে সীমান্ত প্রহরার দায়িত্ব সামলাচ্ছে আইটিবিপি। এরই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি সামলাতে দেশের অভ্যন্তরে কাজ করেছে এই ট্রুপ। আইটিবিপি কাজ করে মাওবাদী অধ্যুষিত এলাকাতেও। ভারত চিন সীমান্তে এই ৪৭টি আউটপোস্ট তৈরি করার ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্র। এরপরেই নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে।

এদিকে, এদিকে, ১২ই অক্টোবর কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং দেশের সাতটি রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে ৪৪টি ব্রিজের উদ্বোধন করেন। যার মধ্যে লাদাখ ও অরুণাচল প্রদেশও ছিল। খুব স্বাভাবিকভাবেই কৌশলী পা ফেলছে ভারত। খুব ধীরে হলেও প্রস্তুতি সারছে চিনা সেনার মোকাবিলার। লাদাখে সেই লক্ষ্যেই তৈরি হচ্ছে একের পর এক ব্রিজ। যাতে খুব কম সময়ে ট্রুপের মুভমেন্ট ঘটানো যায়। গোটা দেশে ছড়িয়ে থাকা ৪৪টি ব্রিজের উদ্বোধন করেছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। এর মধ্যে ৮টি ব্রিজ তৈরি হয়েছে লাদাখে।

এই বিষয়টাই হজম হচ্ছে না চিনের। ভারতকে লক্ষ্য করে সমালোচনার তির ছুঁড়েছে চিন। তাঁদের দাবি অবিলম্বে সীমান্তে নির্মাণ কাজ বন্ধ করুক ভারত। নয়তো পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে। দুই দেশের সম্পর্কের অবনতির এই অবস্থায় ভারতের ভূমিকাতে চিন হতাশ বলেও মন্তব্য করা হয়েছে।

সোমবার অর্থাৎ ১২ই অক্টোবর প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ৪৪টি গুরুত্বপূর্ণ ব্রিজ উদ্বোধন করেন। যার মধ্যে পশ্চিম, উত্তর ও উত্তরপূর্বের সীমান্তবর্তী রাজ্যগুলি রয়েছে। জম্মু কাশ্মীরে ১০টি, লাদাখে ৮টি, হিমাচল প্রদেশে ২টি, পঞ্জাবে ৪টি, উত্তরাখণ্ডে ৮টি, অরুণাচল প্রদেশে ৮টি, সিকিমে ৪টি ব্রিজ তৈরি করা হয়েছে।

লাদাখে আটটি ব্রিজের ৩টি তৈরি হয়েছে জোজিলা-কার্গল-লেহ রোডের ওপর। দুটি তৈরি হয়েছে খালসার-সাসোমা রোডের ওপর, একটি করে তৈরি হয়েছে সাংকো-কুনোরে-সাপিলা-মুলবেক রোড, নিম্মু-পদম-দরচা রোড ও দরবক-শায়ক-দৌলত বেগ ওল্ডি রোডের ওপর। প্রতিটি ব্রিজই ২৪ থেকে ৮০ মিটার লম্বা। মোট ৪৫ কোটি টাকা ব্যায়ে তৈরি হয়েছে এই ৮টি ব্রিজ।

Reply