চিন-পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নতুন স্ট্র্যাটেজি ভারতের, তৈরি হচ্ছে মিলিটারি থিয়েটার

সীমান্তে নয়া স্ট্র্যাটেজি। চিন পাকিস্তানকে টেক্কা দিতে তৈরি হচ্ছে ভারত। ২০২২ সালের মধ্যে তৈরি করা হবে ৫টি মিলিটারি থিয়েটার কমান্ড। এর মাধ্যমে ভারতীয় সেনায় আসবে বড়সড় রদবদল। জানা গিয়েছে চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বা সিডিএসের নেতৃত্বাধীন থাকবে এই পাঁচটি মিলিটারি থিয়েটার।

সীমান্তে ক্রমশ উত্তাপ বাড়াচ্ছে প্রতিবেশি চিন ও পাকিস্তান। এদের মোকাবিলা করতে শুধু সীমান্ত প্রহরায় জোর দেওয়া নয়, চাই আরও বেশি কিছু। সেই দিকে নজর রেখেই তৈরি করা হচ্ছে মিলিটারি থিয়েটার কমান্ড। ২০২২ সালের মধ্যে এই প্রক্রিয়া শেষ করা হবে। চিন ও পাকিস্তানের জন্য এই পাঁচটির মধ্যে থেকে নির্দিষ্ট করা হবে কমান্ড। অর্থাৎ এই দুই দেশের জন্য নির্দিষ্ট একটি করে কমান্ড থাকবে।

ভারতীয় সেনার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে জম্মু ও কাশ্মীরের জন্য একটি কমান্ড নির্দিষ্ট থাকবে। যারা নিয়ন্ত্রণরেখা ও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার দায়িত্বে থাকবে। ডিপার্টমেন্ট অফ মিলিটারি অ্যাফেয়ার্সে নিযুক্ত করা হবে একজন অতিরিক্ত ও যুগ্ম সচিব। তবে এসবের জন্য প্রয়োজন মন্ত্রিসভার অনুমোদন।

যে পাঁচটি কমান্ড তৈরির কথা বলা হয়েছে সেগুলি হল নর্দার্ণ কমান্ড, ওয়েস্টার্ণ কমান্ড, পেনিনসুলার কমান্ড, এয়ার ডিফেন্স কমান্ড ও মেরিন কমান্ড। চিনের জন্য তৈরি হচ্ছে নর্দার্ণ কমান্ড ও পাকিস্তানের জন্য ওয়েস্টার্ণ কমান্ড। নর্দার্ণ কমান্ডের অবস্থান হবে লাদাখের কারাকোরাম পাস থেকে অরুণাচল প্রদেশের কিবিথু পর্যন্ত। এর সদর দফতর হবে লখনউতে।

ওয়েস্টার্ণ কমান্ডের অবস্থান হবে সিয়াচেন হিমবাহের সালটোরো রিজ থেকে গুজরাতের জয়পুর পর্যন্ত। এর সদর দফতর হবে গুজরাতে। তৃতীয় কমান্ড হবে পেনিনসুলার কমান্ড। যার দায়িত্বে থাকবে দক্ষিণ ভারত ও দেশের উপকূলবর্তী এলাকা। এর সদর দফতর হতে পারে তিরুঅনন্তপুরমে। পেনিনসুলার কমান্ড একবছরের মধ্যে তৈরি করে ফেলা হতে পারে। এটি গঠনের কাজ শুরু হতে পারে ৩১শে মার্চ, ২০২১।

এয়ার ডিফেন্স কমান্ড দেশের বায়ুসেনার গতি বাড়াবে। দেশের সুরক্ষার কাজে ব্যবহৃত সমস্ত অ্যান্টি এয়ারক্রাফট মিসাইল ও মাল্টি রোল ফাইটার এর নিয়ন্ত্রণে থাকবে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে খবর এই পাঁচটি কমান্ড তৈরির ছক কষা হয়ে গিয়েছে।

Reply