‘সীমান্তে ১ইঞ্চিও জমি ছাড়বনা’ প্রতিজ্ঞা করলেন রাজনাথ

চিনের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে চলা সীমান্ত সমস্যায় শান্তি চায় ভারত। তবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এও জানিয়েছেন যে, চীনের জিংপিং সরকার যদি তাদের আগ্রাসন মূলক মনোভাব এখনো পর্যন্ত জারি রাখে শান্তির বার্তা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সতর্ক বার্তা প্রেরণ করেছেন তিনি।

রবিবার দশেরা উপলক্ষে সিকিমে গিয়ে শস্ত্র পূজা সম্পন্ন করার পর প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং স্পষ্ট করে দেন যে, ভারত শান্তিকামী রাস্ট্র হলেও চিনা সরকারের কোন আগ্রাসন মূলক মনোভাব সহ্য করবে না।

এদিন রাজনাথ সিং বলেন,”ভারতের বীর সেনানিরা (দেশের সুরক্ষার জন্য) নিজেদের জীবন বলিদান করেছেন। সীমান্তে ভারত-চিন উত্তেজনা প্রশমিত হওয়া উচিত এবং শান্তি রক্ষিত হোক। তবে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতেই থাকছে। যদিও আমি আত্মবিশ্বাসী যে আমাদের সেনানিরা কারওকেই ১ ইঞ্চি জমি কেড়ে নিতে দেবেন না… ভারতীয় সে’নার সাহসিকতার কথা ইতিহাস মনে রাখবে।”

এই বছরেই লাইন অব অ্যাকচ্যুয়াল কন্ট্রোল বা এলএসি বরাবর চিনা সৈন্যের বারবার আ’ক্র’মণ এর জেরে বেশ কয়েকবার ভারত-চিন সংঘর্ষ হয়েছে। লাদাখ ছাড়াও সিকিম বা অরুণাচল প্রদেশেও চিন এবং ভারতের সম্পর্ক বেশ উত্তেজনা মূলক।

সীমান্ত পরিস্থিতিরবিষয়ে দুই দেশের সে’নাপ্রধানদের মধ্যে বারেবারে কূটনৈতিক আলোচনা হলেও সমাধানে আসা যায় নি। চিনের প্রতি রাজনাথের শান্তির বার্তা সঙ্গে হুঁ’শিয়ারি দিতে দেখা গেছে। মনে করছেন প্রতিরক্ষা মহলের একাংশ মনে করেন, দেশের সেনাদের মনোবল বাড়ানোর পাশাপাশি চিনা-নীতি নিয়ে বিরোধীদের সমালোচনার উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন রাজনাথ সিং।

বাংলা ও সিকিমে দুদিনের সফরে বেরিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং রবিবার সকালে পৌঁছেছেন দার্জিলিংয়ে। সেখানে সুকনা যু’দ্ধ স্মারকে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন তিনি। বর্ডার রোড অর্গানাইজেশন-এর তত্ত্বাবধানে থাকা বিকল্প এলাইনমেন্ট গ্যাংটক-নাথুলা রোডের উদ্বোধন করেছেন তিনি। প্রতি বছরই বিজয়া দশমীর দিন অস্ত্র পুজো করার নিয়ম রয়েছে। চিনের সঙ্গে বিবাদের সময়েও এই পরম্পরায় বিঘ্ন ঘটেনি।

Reply