দেশের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে দ্রুত, স্বীকার করলেন রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস

ক’ রোনা মহা’ মা’ রী’ র জেরে দীর্ঘ সাত মাস ধরে বন্ধ দেশের অর্থনৈতিক লেনদেন। এহেন পরিস্থিতিতে দেশের অর্থনৈতিক গ্রাফ ক্রমশই নিম্নমুখী। জিডিপির পতন সুস্পষ্ট। চলতি অর্থবর্ষে জিডিপির পতনের হার প্রায় ৯.৫ শতাংশ হয়ে দাঁড়াতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন দেশের অর্থনৈতিক উপদেষ্টারা। তবে এরই মাঝে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার গভর্নর শক্তিকান্ত দাস অবশ্য শোনালেন আশার কথা।

আর বি আই এর গভর্নরের বক্তব্য অনুসারে, মহামারীর জেরে ভারতের বিধ্বস্ত অর্থনীতির এবার ঘুরে দাঁড়ানোর পালা। তার দাবি, দেশের অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান গুলির কাছে যথেষ্ট পরিমাণে অর্থ আছে। যা দিয়ে শীঘ্রই দেশের অর্থনীতির হাল ফেরানো যাবে। উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় সূত্রে খবর করোনার ক্ষতি এড়াতে শীঘ্রই আরেক দফা আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণার পথে হাঁটতে চলেছে কেন্দ্র।

এরই মাঝে আর বি আইয়ের গভর্নর দাবি করলেন, অতি মারীর দরুন দেশীয় অর্থনীতিতে যে বিপর্যয় নেমে এসেছে, তা এড়ানোর দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে আছে ভারত। ব্যাঙ্কগু’ লি’ র কাছে এই মুহূর্তে পর্যাপ্ত পরিমাণে মূলধন আছে বলেই দাবি করেছেন তিনি। তবে, কয়েকদিন আগেই অবশ্য আর বি আই এর তরফ থেকে প্রকাশিত একটি বিবৃতিতে জানানো হয়েছিল, চলতি অর্থবর্ষে অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হারের সংকোচন প্রায় ৯.৫ শতাংশে গিয়ে নামবে।

দেশের অর্থনীতি বিষয়ক সচিব তরুণ বাজাজ সম্প্রতি একটি ভার্চুয়াল মাধ্যমে জানিয়েছেন, দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা পুনরুদ্ধারে দ্বিতীয় দফায় আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে কেন্দ্র। সেই উদ্দেশ্যে বর্তমানে বিভিন্ন মন্ত্রক এবং ক্ষেত্র থেকে পরামর্শ নেওয়া হচ্ছে। সবদিক বিবেচনা করে শীঘ্রই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলে জানা গেছে।

Reply