‘জঙ্গলরাজ’ ফিরতে দেবেন না, বিহারে ভোটপ্রচারে গিয়ে আহ্বান মোদীর

উ’ ন্নাও গ’ ণ’ ধ’ র্ষ’ ণ থেকে ডন বিকাশ দুবে এপিসোড, কিংবা হালফিলের হাথরস গ’ ণ’ ধ’ র্ষ’ ণ-খু’ ন কাণ্ড। পর পর অ’ প’ রা’ ধ’ মূ’ লক কার্যকলাপের জেরে বিরোধীরা ‘জঙ্গলরাজ’ বলে কটাক্ষ করেন যোগী আদিত্যনাথের উত্তরপ্রদেশকে। ভোটপ্রচারে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেই ‘জঙ্গলরাজ’ তকমা দিলেন নীতীশ কুমারের আগের বিহারকে। আরজেডির নেতৃত্বে ‘মহাগঠবন্ধন’কে নিশানা করে মোদীর আহ্বান, আর ফিরিয়ে আনবেন না ‘লুটেরাদের রাজত্ব’।

আজ বুধবার প্রথম দফায় ৭১টি আসনের ভোটগ্রহণ দিয়ে শুরু হয়েছে ২৪৩ আসনের বিহার বিধানসভার নির্বাচন। দুপুর পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলছে শান্তিপূর্ণ ভাবেই। তার মধ্যেই এ দিন দ্বিতীয় দফার ভোটপ্রচারে দ্বারভাঙার রাজ ময়দানে জনসভায় যোগ দেন মোদী। ওই সভাতেই বিরোধী মহাজোটকে নিশানা করে মোদী বলেন, ‘‘যাঁরা বিহারে জঙ্গলরাজ কায়েম করেছিলেন, যাঁরা বিহারকে লুটেপুটে খেয়েছেন, বিহারের মানুষ শপথ নিয়েছেন, তাদের ফিরতে দেবেন না।’’ আরজেডি, কংগ্রেস, বামেদের মহাজোটের নেতাদের উদ্দেশে তাঁর কটাক্ষ, ‘‘এঁরাই সেই নেতারা, যাঁরা সরকারে থাকার সময় বিহার অপরাধের চরম সীমায় পৌঁছেছিল।’’

এর পাশাপাশি মোদীর ভাষণে উঠে এসেছে ‘আত্মনির্ভর ভারত অভিযান প্রকল্প’, রামমন্দির নির্মাণের প্রতিশ্রুতির কথাও। বলেন, ‘‘বিহারকে স্বাবলম্বী হতে গেলে আত্মনির্ভর ভারত এবং আত্মনির্ভর মিথিলাঞ্চল গড়ে তোলা অত্যন্ত জরুরি।’’ রামমন্দির প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, ‘‘অযোধ্যায় বিশাল রামমন্দির তৈরি হচ্ছে। রাজনীতিকদের অনেকেই জিজ্ঞেস করতেন, কবে রামমন্দির তৈরি হবে। তাঁরাই আজ প্রশংসা করছেন। বিজেপি এবং এনডিএ যা প্রতিশ্রুতি দেয়, সেটা করে দেখায়। এটাই তার প্রমাণ।’’

করোনা আবহে অত্যন্ত সতর্কতার মধ্যে দিয়ে ভোটগ্রহণের বন্দোবস্ত করেছে নির্বাচন কমিশন। এ নিয়ে সাবধান করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘প্রথম পর্বের ভোটগ্রহণ চলছে। সবার কাছে আমার আর্জি, করোনার বিরুদ্ধে সমস্ত সতর্কতা নিয়ে আপনার ভোট দিতে যান।’’ করোনায় আক্রান্তদের দ্রুত আরোগ্য কামনাও করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

Reply