“বিজেপির পোষ্য সংস্থায় পরিণত হয়েছে NIA”, ফের বিতর্কিত মন্তব্য মেহেবুবা মুফতির

ভারতের জাতীয় পতাকা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের পর এবার এনআইএ অর্থাৎ জাতীয় তদন্তকারী সংস্থাকে “বিজেপির পোষা সংস্থা” বলে সংবাদ শিরোনামে উঠে এলেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি।

বুধবার শ্রীনগরে ১০ টি স্থানে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা তল্লাশি চালায়। তল্লাশি চালানো হয়েছে ইংরেজি দৈনিক,”গ্রেটার কাশ্মীর” এর দপ্তরে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রধান মেহবুবা মুফতি এনআইএ কে বিজেপির পোষা সংস্থা বলে দাবি করেন।

স’ন্ত্রা’সবাদীদের আর্থিক মদত দেওয়ার অভিযোগে জম্মু-কাশ্মীরের বেশ কয়েকটি জায়গায় তল্লাশি চালায় এনআইএ। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে গতকাল একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়, কাশ্মীরে এবার যে কোন ভারতীয় জমি কিনতে পারবে।

মেহেবুবা মুফতি টুইট করে এই দুই প্রসঙ্গ তুলে ধরেছেন। তাঁর অভিযোগ,”বিজেপির ‘অল ইজ ওয়েল’ হেঁয়ালিতে সবথেকে বড় ক্ষতি হয়েছে সত্যের। যে সাংবাদিকরা গোদি মিডিয়ার অংশ হতে চাইবেন না তাঁদেরই টার্গেট করা হবে।”

জম্মু-কাশ্মীর সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন,”কেন্দ্রীয় সরকার চায় এই পরিস্থিতিতে সংবাদমাধ্যমগুলি ডায়াবেটিস ও যোগাসন নিয়ে লিখুক”। অন্য আরেকটি টুইটে মুফতি লেখেন,”দুঃখজনকভাবে বিজেপির পোষ্য সংস্থাতে পরিণত হয়েছে এনআইএ।”

মানবাধিকার কর্মী খুরাম পারভেজ ও ‘গ্রেটার কাশ্মীরে’র দপ্তরে এনআইএ’র হানা প্রসঙ্গে সরব হয়েছেন মেহেবুবা মুফতি। তিনি লেখেন,”মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও ভিন্নমতকে কীভাবে সরকার অবদমন করতে চাইছে, এটা তার অন্যতম উদাহরণ।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য,গত বছর ৩৭০ ধারা বাতিলের পর থেকে প্রায় ১ বছরেরও বেশি সময় ধরে গৃহবন্দী ছিলেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সভাপতি মেহবুবা মুফতি।

সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের তাপের মুখ পড়ে মেহবুবাকে ছাড়তে বাধ্য হয় কেন্দ্র সরকার। মুক্তির পর থেকেই ফের ৩৭০ ধারা ফেরানোর দাবি সরব হতেও দেখা যায় তাকে। তিনি ফারুখ আবদুল্লার নেতৃত্বে গুপকার ডিক্লেরেশনের যোগ দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রী প্রল্লাদ যোশী এই প্রসঙ্গে বলেন, কাশ্মীরের দুই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর ভারতে থাকার কোন অধিকার নেই।

Reply