“এবার গোটা হাওড়াও জ্ব’লবে”, হুঁশিয়ারি সৌমিত্রর

দলীয় নেতার মৃ*ত্যু’র প্রতিবাদে ১২ ঘন্টার বন্ধ রেখেছে বিজেপি। ফলস্বরূপ বাগনান এখন উত্তপ্ত। সৌমিত্র খাঁ এলাকায় প্রবেশ করতে গেলে বাধা দেয় পুলিশ। তখনই শুরু হয় অশান্তি। সৌমিত্র খাঁ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, হাওড়া এবার জ্বলবে।

বিজেপি কর্মী সমর্থক না তখন টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। বাগনান থানার সামনে অবস্থান বিক্ষোভ করা হয় বিজেপি কর্মীদের পক্ষ থেকে। পাল্টা প্রতিবাদে সব এলাকায় শান্তি মিছিল করেন তৃণমূল কর্মীরা।

বিজেপির পক্ষ থেকে ১২ ঘন্টা বন্ধের ডাক দেওয়া হলেও, বাগনানে বন্ধের কোনো চিহ্নই মেলেনি। দোকানপাট মোটামুটি খোলাই ছিল। গাড়ি ঘোড়ার ও দেখা মিলেছে। তবে বেলা বারটা না বাজতেই বাগনানের চেহারা পাল্টে যায়।

ওই এলাকায় আসেন সৌমিত্র খাঁ। পুলিশের পক্ষ থেকে সৌমিত্র খাঁ কে এলাকায় ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়। ফলস্বরূপ পুলিশের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

দলীয় কর্মীদের আটক করা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সৌমিত্র খাঁ তিনি বলেন,”এবার গোটা হাওড়া জ্ব’লবে”। বিজেপি কর্মীরা বাগনান থানার সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এমনকি রাস্তায় টায়ার জ্বা’লিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তারা। এরইমধ্যে পুলিশ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য,মহাষ্টমীর রাতে পেশায় ফুল ব্যবসায়ী বিজেপি নেতা কিঙ্কর বাড়ি ফিরছিলেন। পথে তারই এক প্রতিবেশীর সঙ্গে দেখা হয়। সামান্য বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়লে ওই প্রতিবেশী কিংকর কে কয়েক রাউন্ড গু’লি করে পালিয়ে যায়। অবশেষে কয়েকটি হাসপাতাল ঘুরে কিংকর কে নিয়ে যাওয়া হয় এনআরএস হাসপাতালে। অ-স্ত্রপ্র’চার করা হলেও বাঁচানো সম্ভব হয়নি ওই বিজেপি নেতা কে।

বুধবার বিকেলে বিজেপি নেতার মৃ*ত্যু’র সংবাদ ছড়িয়ে পড়তেই ক্ষুব্ধ হয় বিজেপি মহল। এলাকার বেশ কয়েকটি বাড়িতে ভাঙচুর করার পাশাপাশি আ’গু’ন লাগিয়ে দেওয়া হয়। বিজেপি কর্মী সমর্থক রা দফায় দফায় বোম্বে রোড অবরোধ করেন। ঘেরাও করা হয় বাগনান থানা। বৃহষ্পতিবার ১২ ঘন্টার বন্ধের ডাক দেয় বিজেপি।

Reply