এই ৫মাস কাজ করুন, আগামী ৫০বছর রাজ করবেন বাংলায়’ বিজেপি কর্মীদের নির্দেশ অমিত শাহের

বিহারের পর এবার টার্গেট বাংলা।আগামী বিধানসভা ভোটে এ রাজ্যে দুশোর বেশি আসনে বিজেপি জিতবে বলে বৃহস্পতিবারই বাঁকুড়ায় দাবি করেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

তাঁর এই দাবি যে নিছক ফাঁকা আওয়াজ নয়, সেটা বোঝাতে বাঁকুড়ার সাংগঠনিক বৈঠকে তিনি বলেন, ‘আমি লোকসভা ভোটে বাইশটি আসনে জেতার কথা বলেছিলাম। চার-পাঁচটি আসনে আমরা মাত্র দু’চার হাজার ভোটে হেরে গিয়েছি। কেউ হাসলে হাসতে দিন। নিষ্ঠার সঙ্গে লড়াই করে দুশোর বেশি আসন জিতে বিজেপি সোনার বাংলা গড়বেই।’

আর শুক্রবার সল্টলেকে দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে তিনি বলে দিলেন, ‘এ বারের ভোটে রিগিং, সন্ত্রাস হবে না। এর গ্যারান্টি আমি নিচ্ছি।’ কর্মীদের উদ্বুদ্ধ করতেই তিনি বলেন, ‘এই পাঁচ মাস পরিশ্রম করুন, পঞ্চাশ বছর রাজ করবে। কিন্তু অবশ্যই বুথস্তর শক্তিশালী করতে হবে। প্রতিটি বুথে ৪০ জনের কমিটি করতে হবে। বুথ শক্তিশালী না হলে ক্ষমতায় চলে এলেও ক্ষমতা ধরে রাখতে পারবেন না।’

কিন্তু বারবারই বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী মুখ নিয়ে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বকে প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছে। এদিন তা নিয়েও অমিত শাহ দলের নেতাদের বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী মুখ নিয়ে আপনাদের ভাবতে হবে না।

নিজেদের কাজ করে যান। তৃণমূলের ব্যর্থতার থেকেও বেশি প্রচারে আনুন নরেন্দ্র মোদীর সাফল্যে কথা।’ সেইসঙ্গেই তিনি জানিয়ে দেন, ‘বিজেপির বিচারধারাকে পশ্চিমবঙ্গে ছড়িয়ে দিতে হবে। বাংলার বিকাশ ও সুরক্ষার স্বার্থে বিজেপিকে দরকার, এটা প্রতিটি মানুষকে বোঝাতে হবে।’

অমিতের হুঙ্কারকে কটাক্ষ করে তৃণমূল নেতা সৌগত রায়ের প্রশ্ন, ‘উনি সোনার উত্তরপ্রদেশ গড়ছেন না কেন?’ তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল, দুশোর বেশি আসনে জেতার কথা অমিত গতকাল দুপুরে বলেছেন বাঁকুড়ায় রুদ্ধদ্বার সাংগঠনিক বৈঠকে। কিন্তু সেই কথা দলের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে রাতে রাজ্য বিজেপির মিডিয়া হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভাষণের ওই অংশটুকু পোস্ট করা হয়।

তিনি যে বিধানসভা ভোটের দামামা বাজাতেই বঙ্গ-সফরে এসেছেন তা স্পষ্ট করে দিয়ে অমিত সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরার সামনেই হুঙ্কার দেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের মৃ*ত্যুঘণ্টা বেজে গিয়েছে।

রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে যা ক্রোধ এবং নরেন্দ্র মোদীর প্রতি আশা ও শ্রদ্ধা বাংলায় এসে দেখছি তাতে আমি নিশ্চিত, আগামী নির্বাচনে দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে এখানে বিজেপি সরকার গড়বে।

বাংলা হবে সোনার বাংলা।’ সেই সূত্র ধরেই এদিন দক্ষিণেশ্বরে পুজো দিতে গিয়েও বলেন, ‘বাংলা ভক্তি আন্দোলনের পীঠস্থান। মহান মণীষীদের জন্ম হয়েছে বাংলার পূণ্যভূমিতে। বাংলা সেই হারানো গৌরব ফিরে পাক, সেই প্রার্থনাই করেছি দেবী ভবতারিণীর কাছে।

পশ্চিমবঙ্গবাসীকে বলব একজোট হয়ে দায়িত্ব পালন করুন। মা কালীর কাছে গোটা দেশ তথা বাংলার মঙ্গল কামনা করেছি। নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে আমাদের দেশ এক নম্বরে যাক, সেটাই চাই।’ অমিতের বঙ্গ-সফরকে কটাক্ষ করে তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম অবশ্য বলেছেন, ‘বিজেপি-শাসিত রাজ্যে দলিতদের উপর অত্যাচার হচ্ছে। সে সব ঢাকতে উনি এ রাজ্যে এসেছেন।’

Reply