শুধু ট্রাম্প নয়, আমার সাথে দারুন ভালো সম্পর্ক বাইডেনেরও’- শুভেচ্ছা বার্তায় ভরিয়ে বললেন প্রধানমন্ত্রী মোদী!

কে পেতে চলেছেন হোয়াইট হাউসের মসনদ! তা নিয়ে জ-ল্প-না চলছিল অনেকদিন ধরেই।এবার এরই চূড়ান্ত প্রতিফলন ঘটতে দেখা গেলো।আবার যুগ পরিবর্তন হলো মার্কিন মুলুকে।যদিও আগে থেকেই আভাস মিলছিল,তবে এতটা অভাবনীয় ফলাফল হয়তো ভাবেনি অনেকেই।৪৬ তম মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন জো বাইডেন।

শনিবার অবধি ২৫৩টি ইলেক্টোরাল ভোট নিয়ে অনেকটা এগিয়ে ছিলেন জো বাইডেন। ভারতীয় সময় অনুযায়ী শনিবার রাতে পেনসিলেভেনিয়ায় জিতে জয় নিশ্চিত করলেন বাইডেন।জর্জিয়ায় পুনরায় গণনা শুরু হলেও আত্মবিশ্বাস কমেনি একটুও বাইডেনের।

জয় সুনিশ্চিত হতেই,শুভেচ্ছা জোয়ারে ভাসলেন জো বাইডেন-কমলা হ্যারিসরা। প্রেসিডেন্ট-ভাইস প্রেসিডেন্ট দুজনকেই শুভেচ্ছা জানালেন,ভারতের প্রধনমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এদিন বাইডেন কে উদ্দেশ্য করে মোদী তার টুইটার হ্যান্ডেলে লেখেন,”এত দর্শনীয় জয়ের জন্য আপনাকে অভিবাদন। ভারত-আমেরিকার সম্পর্ককে জোরদার করতে আপনার ভূমিকা অমূল্য এবং গুরুত্বরপূর্ণ।

আমি আপনার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে মুখিয়ে থাকব।”আমরা সকলেই জানি যে মোদীর সঙ্গে ট্রাম্পের সুসম্পর্কের কথা,নতুন প্রেসিডেন্ট কে এভাবে শুভেচ্ছা জানানো থেকে প্রধানমন্ত্রী আর বাইডেনের সম্পর্কের অনুমান পেতে পারি কিছুটা।এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী কমলা হ্যারিস কে উদ্দেশ্য করে বলেন যে, “আপনার সাফল্য অসাধারণ। এই সাফল্য প্রতিটি ইন্দো আমেরিকানের জন্য গর্বের। আমি আত্মবিশ্বাসী আপনার নেতৃত্বে ও সহযোগিতায় ভারত মার্কিন সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হবে।”

শুধু প্রধানমন্ত্রী নয় ভারতের অন্যান্য রাজনৈতিক পক্ষ থেকেও শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো হয়েছে মার্কিন মুলুকের নতুন প্রেসিডেন্ট কে।রাহুলের বার্তা, যোগ্য নেতৃত্ব পাচ্ছেন মার্কিন নাগরিকরা।আজ ট্যুইটারে রাহুল লেখেন, “জো বিডেনকে স্বাগত। আমি আত্মবিশ্বাসী, তিনি মার্কিনিদের ঐক্যবদ্ধ করবেন এবং নেতৃত্বের সঠিক দিশা দেবেন।”তবে ট্রাম্প সহজেই মেনে নিতে পারেননি এই জয়কে।তিনি এর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হবে বলেও জানান কারচুপির অ-ভি-যো-গে।

Reply