“বলিউডকে ধ্বং’ স করতে দেব না” আওয়াজ তুললেন শিবসেনার উদ্ভব ঠাকরে

বলিউডকে কালিমালিপ্ত করার প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে এবার রুখে দাঁড়ালেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির পাশে দাঁড়িয়ে তিনি বললেন, কখনোই তিনি বলিউডকে ধ্বং’ স করে দেওয়ার উদ্দেশ্য সফল হতে দেবেন না।

এদিন মহারাষ্ট্র সরকারের মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তর থেকে এক বিবৃতি জারি করে বি’ স্ফো’ র’ ক মন্তব্য করা হয়েছে। বলা হয়েছে, কেউ বা কারা মুম্বাইয়ের হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে শেষ করে দিতে চাইছে। ‘ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে শেষ করে দেওয়া অথবা সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার যে চক্রান্ত চলছে, তা সহ্য করা হবে না’, বলেন উদ্ধব ঠাকরে।

শুধু তাই নয়, মুখ্যমন্ত্রী আরো বলেন, সারা দুনিয়ায় বলিউডের কদর রয়েছে। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি অসংখ্য মানুষের রোজগারের জায়গা। গত কয়েকদিনে নানা ভাবে চেষ্টা করা হয়েছে কিছু স্তর থেকে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সুনাম খারাপ করার। এটা খুবই বেদনাদায়ক।’ সেই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন মুম্বাই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির ওপর নির্ভর করে আছে গোটা দেশের অর্থনীতির একটা বড় অংশ। এটি দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী।

সিনেমা এবং মাল্টিপ্লেক্স মালিকদের সঙ্গে বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে জানিয়েছেন, রাজ্যের সংস্কৃতি দফতর একটি স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর তৈরি করেছে, যার ভিত্তিতেই প্রায় ৬ মাস পরে মহারাষ্ট্রের সিনেমা হল খোলার প্রস্তুতি নেওয়া হবে। এসওপি তৈরি হলেই সিনেমা হল খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঠাকরে। সরকার এ বিষয়ে খুবই আশাবাদী। রাজ্যের অর্থনীতি ফের চাঙ্গা করার ক্ষেত্রে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে বিনোদন ইন্ডাস্ট্রি’ বলেন তিনি।

এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই উত্তর প্রদেশের যোগী সরকার ঘোষণা করেছে নয়ডা বিশাল আয়তনের ফিল্ম সিটি তৈরির করার, যাতে চলচ্চিত্র নির্মাতা ও পরিচালকদের পক্ষে লোকেশন বাছাইয়ে আরও সুবিধে হয়। সেই সূত্রেই কি উদ্ধব ঠাকরের আজকের এই আশঙ্কা? জল্পনা তৈরি হয়েছে।

গত জুন মাসে বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ’ ত্যু’ র পর থেকেই বলিউড নিয়ে কাটাছেঁড়া শুরু হয়েছে। ইন্ডাস্ট্রির অন্ধকার দিক গুলিকে সামনে এনে দুর্নাম করা হয়েছে একাধিকবার। ফের কি নিজের গরিমা পুনরুদ্ধার করতে পারবে বলিউড? উত্তর দেবে সময়।

Reply