প্রতিশ্রুতিমতো নীতীশই মুখ্যমন্ত্রী, জানাল বিজেপি! কিন্তু কতদিনের জন্য?

বিহার ভোটে ক্ষমতা ধরে রেখেছে এনডিএ। আবার মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে বসতে চলেছেন নীতীশ কুমার। ভোটের ফল বলছে, বিজেপি পেয়েছে ৭৪ আসন, নীতীশের জেডিইউ থেমেছে ৪৩ আসনে। যদিও নীতীশই মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন বলে ঘোষণা করে দিয়েছে বিজেপি। এই নিয়ে ষষ্ঠবার বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হতে চললেন নীতীশ কুমার। কিন্তু বিজেপির নির্ভরতায় যে চেয়ারে তিনি বসতে চলেছেন, তার মেয়াদ কতদিন তা নিয়ে ইতিমধ্যেই আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে।

কেন এই আলোচনা

এর আগে নীতীশ কুমার দু’বার এমন সরকারের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, যেখানে তাঁর দল জেডিইউ শরিকের তুলনায় কম আসন পেয়েছিল। জানেন কী ভবিষ্যৎ হয়েছিল সেই সরকারের?

সেটা ২০০০ সাল। বিজেপিকে সঙ্গে নিয়ে লালুকে টক্কর দিলেন নীতীশ কুমার। প্রত্যাশিত ফল না হলেও বিজেপিকে নিয়ে পাটনায় সরকার গড়ে ফেলেছিলেন নীতীশ কুমার। সেবার জেডিইউ পায় ৩৪ টি আসন, সেখানে বিজেপির হাতে ছিল ৬৭ টি সিট। তবু মুখ্যমন্ত্রী হওয়া আটকায়নি নীতীশ কুমারের। শেষে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে না পারায় পড়ে যায় সরকার। মাত্র ৮ দিনের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন নীতীশ।

তারপর আবার ২০১৫ সাল। নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে আপত্তির জেরে এনডিএ ছেড়ে বেরিয়ে আসেন নীতীশ। হাত ধরেন লালুপ্রসাদ যাদবের। বিজেপিকে হারিয়ে ৭১ টি আসন জেতে নীতীশের জেডিইউ। আরজেডি জিতেছিল ৮০ টি আসন। কিন্তু আগেই লালু ঘোষণা করে দিয়েছিলেন, জিতলে মুখ্যমন্ত্রী হবেন নীতীশ কুমার। সেবারও বিহারের নীতীশ ছোট শরিক হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী হন। তেজস্বী হন ডেপুটি চিফ মিনিস্টার। পরবর্তীতে আরজেডির সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় বেরিয়ে আসেন নীতীশ। বিজেপির সমর্থন নিয়ে টিকিয়ে রাখেন সরকার। এবার নীতীশ কুমারকে বড়ো শরিক হিসেবেই নির্বাচনে গিয়েছিল এনডিএ।

কিন্তু ২০২০ বিহার ভোটের ফলে দেখা গেল বিজেপি এনডিএর সবচেয়ে বড়ো দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। নীতীশের জেডিইউ আজ নেহাতই ছোট শরিক। পূর্ব প্রতিশ্রুতি মতো নীতীশ মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন। কিন্তু এর মধ্যেই পাটনার অলিগলিতে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, মুখ্যমন্ত্রী তো হবেন, কিন্তু কতদিনের জন্য?

Reply