দীপাবলির আগে নতুন সাজে সেজে উঠলো মায়ের দক্ষিণেশ্বর মন্দির

বাংলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিচালিত সরকারের আমলে উন্নয়নের রূপরেখা জুড়ে যে বিশেষ কয়েকটি নাম প্রথম সারিতে অবস্থান করছে, দক্ষিণেশ্বরের কালী মন্দির তার মধ্যে অন্যতম। গত কয়েক বছরে সরকারের উদ্যোগে আমূল বদলে গেছে দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের রূপ। সেই উন্নয়নের মুকুটেই এবার ফের যুক্ত হল এক নতুন পালক। দীপাবলির মরশুমে আরো এক অত্যাধুনিক প্রযুক্তি দিয়ে সাজানো হল দক্ষিণেশ্বরের কালী মন্দির।

জানা গেছে, এবার অত্যাধুনিক লাইট অ্যান্ড সাউন্ড সিস্টেম দিয়ে সাজানো হয়েছে কলকাতা সংলগ্ন অঞ্চলের অন্যতম আকর্ষণ দক্ষিণেশ্বর মন্দির। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে নবান্ন থেকে অত্যাধুনিক লাইট এন্ড সাউন্ড সিস্টেমের উদ্বোধনের পরই নতুনরূপে আত্মপ্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক এই তীর্থক্ষেত্র। এদিন মন্দির প্রাঙ্গণে নবরূপে সজ্জিত ঐতিহাসিক দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের লাইট অ্যান্ড সাউন্ড সিস্টেমের সূচনা করেছেন দমদম লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ সৌগত রায়।

তবে শুধু লাইট অ্যান্ড সাউন্ড সিস্টেমই নয়, জানা গেছে দীপাবলি উপলক্ষ্যে দক্ষিণেশ্বর কালী মন্দিরকে অত্যাধুনিক মানের আলোর মালায় সাজিয়ে নতুন রূপে সাজানো হয়েছে। সপ্তাহান্তে কালীপুজোয় নতুন সাজে আত্মপ্রকাশের জন্য এখন তৈরি দক্ষিণেশ্বর।

এর আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নের অফিস থেকে দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের এই নতুন প্রযুক্তির উদ্বোধন করেছিলেন। তবে মন্দিরের মধ্যে অত্যাধুনিক এই সিস্টেমের শুভ সূচনা করা হয় মঙ্গলবার সন্ধ্যায়। অধ্যাপক ও দমদমের তৃণমূল নেতা সৌগত রায় ছাড়াও এদিন অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে দক্ষিণেশ্বরে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক নেতৃবৃন্দ। মন্দির কমিটির প্রধান কুশল চৌধুরী, কামারহাটি পুরসভার পৌরপ্রশাসক গোপাল সাহা, মদন মিত্র প্রত্যেকেই এদিন দক্ষিণেশ্বর কালী মন্দিরে উপস্থিত থেকে লাইট এন্ড সাউন্ড সিস্টেমের সূচনা প্রত্যক্ষ করেন ।

জানা গেছে, ঐতিহাসিক এই দক্ষিণেশ্বর কালী মন্দিরের ইতিহাস অত্যাধুনিক লাইট এন্ড সাউন্ড সিস্টেমের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে । মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই লাইট এন্ড সাউন্ড সিস্টেমের উদ্বোধনের পর সাংসদ সৌগত রায় সাংবাদিকদের বলেছিলেন, “কে এম ডি এ এই কাজটি করেছে অভূতপূর্ব একটি সৌন্দর্য্যয়নের কাজ হয়েছে।” এই প্রযুক্তি বাস্তবায়নে সরকারের মোট ১৯ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে বলে জানা গেছে।

Reply